রাজশাহীর বাঘায় পৈত্রিক জমি নিয়ে দুই ভাইয়ের মারামারিতে বড় ভাই সাহাবুদ্দিন নিহত হয়েছেন। শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় উপজেলার কলিগ্রামে এই ঘটনা ঘটে। পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের ছোট ভাই সাজদার রহমান ও তার স্ত্রী রুবিনা বেগমকে আটক করেছে পুলিশ।

নিহত সাহাবুদ্দিন বাঘা পৌরসভার কলিগ্রামের মৃত আবদুস সামাদের বড় ছেলে। আটক সাজদার রহমান তারই আপন ছোট ভাই।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, পৈত্রিক ৫৩ শতাংশ জমি নিয়ে সাহাবুদ্দিন ও সাজদার রহমানের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছিল। শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এর জের ধরে দুই ভাইয়ের কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে মারামারি শুরু হয়। এতে দুই ভাইসহ এক নারী আহত হন। আহত তিনজনকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পর জরুরি বিভাগের চিকিৎসক রিফায়েত হোসেন বড় ভাই সাহাবুদ্দিনকে মৃত ঘোষণা করেন । চিকিৎসক জানান, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসার আগেই সাহাবুদ্দিনের মৃত্যু হয়েছে। সাজদার রহমান ও তার স্ত্রী রুবিনাকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

নিহত সাহাবুদ্দিনের স্ত্রী সালমা বেগমের অভিযোগ, দেবর ও তার স্ত্রীর মারপিটে সাহাবুদ্দিনের মৃত্যু হয়েছে। এ বিষয়ে হত্যা মামলা করবেন বলেও জানান তিনি।

সাজদার রহমানের দাবি, বড় ভাই সাহাবুদ্দিন ও তার স্ত্রীসহ দুই ছেলে তাদেরকে মারধ করে রক্তাক্ত করে। সেই দৃশ্য দেখে তার বড় ভাই সাহাবুদ্দিন স্টোক করে মারা গেছেন।

পৌরসভার স্থানীয় কাউন্সিলর সাইফুল ইসলাম টগর বলেন, অনেকদিন ধরে বাড়ির জমি নিয়ে দুই ভাইয়ের বিরোধ চলছিল। এ নিয়ে মারামারিতে বড় ভাই মারা গেছে বলে শুনেছি।

বাঘায় উপজেলার ওসি (তদন্ত) মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, ময়না তদন্তের জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে থেকে সাহাবুদ্দিনের মরদেহ উদ্ধার করে রামেক হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।  ঘটনায় জড়িত সাজদার রহমান ও তার স্ত্রী রুবিনা বেগমকে আটক করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।