চট্টগ্রামে করোনায় আট দিন পর মৃত্যুশূন্য দিন কাটলো। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন ১১০ জনের শরীরে ভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়েছে। সংক্রমণের হার ১৩ দশমিক ৭৮ শতাংশ। এদিন সুস্থ হয়েছেন ৩৭৪ জন।

শুক্রবার সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সর্বশেষ রিপোর্টে বলা হয়, নগরীর সাতটি ও কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ ল্যাবে বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামের ৭৯৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। খবর বাসসের

নতুন শনাক্ত ১১০ জনের মধ্যে শহরের ৬৫ জন ও দশ উপজেলার ৪৫ জন। এর মধ্যে রাউজানে সর্বোচ্চ ১৩, হাটহাজারীতে ১২, ফটিকছড়িতে ১০, সীতাকুণ্ডে ৩, বাঁশখালীতে ২ জন এবং ভুজপুর, পটিয়া, বোয়ালখালী, চন্দনাইশ ও লোহাগাড়ায় ১ জন করে রয়েছেন।

জেলায় করোনাভাইরাসে মোট শনাক্ত ব্যক্তির সংখ্যা এখন ৫৩ হাজার ৮৬৩ জন। এর মধ্যে শহরের বাসিন্দা ৪২ হাজার ৮৩১ জন ও গ্রামের ১১ হাজার ৩৩ জন।

বৃহস্পতিবার করোনায় কোনো রোগী মারা যায়নি। ফলে মৃতের সংখ্যা ৬২৬ জনই রয়েছে। এতে শহরের ৪৪৭ ও গ্রামের ১৭৯ জন।

সুস্থতার ছাড়পত্র পেয়েছেন নতুন ৩৭৪ জন। মোট আরোগ্যলাভকারীর সংখ্যা ৪১ হাজার ৮২৭ জনে উন্নীত হয়েছে। এর মধ্যে হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন ৫ হাজার ৮৭৬ জন এবং হোম আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসায় সুস্থ হন ৩৫ হাজার ৯৫১ জন। হোম কোয়ারেন্টাইন বা আইসোলেশনে বৃহস্পতিবার যুক্ত হন ৩৫ জন। ছাড়পত্র নেন ৬৬ জন। বর্তমানে কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন ১ হাজার ১১৯ জন।

উল্লেখ্য, চট্টগ্রামে সর্বশেষ ২৬ মে মৃত্যুশূন্য দিন ছিল। এছাড়া ২০ মে আরো একদিন মৃত্যুহীন কেটেছিল। মাসের সর্বোচ্চ ৮ জন মারা যান ৮ মে। পুরো মাসে মোট ১০১ জনের মৃত্যু হয়। এপ্রিলে ১৩৫ জন করোনা রোগী মৃত্যুবরণ করেছিলেন।