লক্ষ্মীপুরে যৌতুকের টাকা না পেয়ে নির্যাতনের শিকার গৃহবধূ শাহিনুর আক্তার শানুর মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার বিকেলে সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এর আগে গত মঙ্গলবার পৌর শহরের উত্তর বাঞ্চানগর এলাকায় শ্বশুরবাড়িতে তাকে কুপিয়ে জখম ও শ্বাসরোধে হত্যার চেষ্টা করা হয়। শানু মারা যাওয়ার পর থেকে তার স্বামী হান্নান ও শ্বশুরবাড়ির অন্য সদস্যরা পলাতক।

নিহতের পরিবার ও পুলিশ জানায়, পাঁচ বছর আগে দুলাল মিয়ার মেয়ে শাহিনুর আক্তারের সঙ্গে একই এলাকার খোরশেদ আলমের ছেলে অটোরিকশাচালক হান্নানের বিয়ে হয়। সম্প্রতি হান্নানকে বিদেশ পাঠানোর কথা বলে এক লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে আসছিল শানুর শ্বশুরবাড়ি লোকজন। এ নিয়ে গত মঙ্গলবার রাতে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বাগ্‌বিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে হান্নান তাকে মারধর করে শ্বাসরোধে হত্যার চেষ্টা চালায়। প্রতিবেশীরা তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।

হাসপাতালে শাহিনুরের বাবা দুলাল মিয়া ও চাচাতো ভাই জামাল হোসেন অভিযোগ করেন, দাবি অনুযায়ী যৌতুকের টাকা দিতে না পারায় নির্যাতন চালিয়ে তাকে হত্যা করা হয়। তারা এ ঘটনার বিচার দাবি করেন।

সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. আনোয়ার হোসেন জানান, শাহিনুরের গলায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

লক্ষ্মীপুর সদর থানার ওসি জসিম উদ্দিন জানান, ঘটনার তদন্ত চলছে। পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন বলেও জানান তিনি।