ট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) রাজনীতি বিজ্ঞান বিভাগ সম্পর্কে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে (ফেসবুকে) কোনো মন্তব্য প্রকাশ না করতে বুধবার বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে বিভাগীয় কর্তৃপক্ষ। এটি অমান্য করলে কী শাস্তি হতে পারে, বিজ্ঞপ্তিতে তা বলা নেই। 

বিভাগের সভাপতি আনোয়ারা বেগম স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, শিক্ষার্থীরা বিভাগ সম্পর্কে কোনো মন্তব্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশ করবে না। এতে বিভাগের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হতে পারে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আনোয়ারা বেগম বলেন, এটি কোনো নিষেধাজ্ঞা নয়। অনেক সময় বিভাগের শিক্ষার্থীরা আবেগপ্রবণ হয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অনেক কিছু লিখে থাকে। তাই এই সতর্কতা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই বিভাগের কয়েকজন শিক্ষার্থী সমকালকে বলেন, চার মাস অতিবাহিত হলেও স্নাতকের ফলাফল আটকে আছে। এ নিয়ে বেশ কয়েকদিন ধরে ফেসবুকে লেখালেখি হচ্ছে। এটা শিক্ষকদের পছন্দ হয়নি। 

তারা আরও বলেন, শিক্ষকদের গড়িমসি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে লেখা যাবে না, এটি হতে পারে না। আর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম বলতে কী বোঝানো হয়েছে, তাও বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ নেই। এটি বাকস্বাধীনতার ওপর হস্তক্ষেপ। এদিকে বিজ্ঞপ্তিটি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে বিভিন্ন বিভাগ এবং অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও এটি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

এ বিষয়ে উপাচার্য ড. শিরীন আখতার বলেন, আমি বিজ্ঞপ্তিটি সমর্থন করি। বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কে কোনো শিক্ষার্থী যদি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে উল্টাপাল্টা কিছু লেখে, তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিষয় : চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় চবি

মন্তব্য করুন