চট্টগ্রাম নগরে বিভিন্ন সংস্থার বাস্তবায়নাধীন জলাবদ্ধতা নিরসন প্রকল্পগুলোর অগ্রগতি পর্যালোচনা করতে সভা আহ্বান করেছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়। আগামী বুধবার ভার্চুয়াল মাধ্যম জুম প্ল্যাটফর্মে এ সভা অনুষ্ঠিত হবে।

এতে সভাপতিত্ব করবেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব ড. আহমদ কায়কাউস। বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সচিব ও প্রকল্প বাস্তবায়নকারী সংস্থার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও এতে অংশ নেবেন।

গত রোববার মাঝারি মাত্রার বৃষ্টিতে তলিয়ে যায় চট্টগ্রাম নগরের বিভিন্ন এলাকা। কোনো কোনো এলাকায় ২৪ ঘণ্টা পানি আটকে থাকে।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের পরিচালক-৩ মুহাম্মদ শাহীন ইমরান স্বাক্ষরিত নোটিশে বলা হয়, চট্টগ্রাম মহানগরের জলাবদ্ধতা নিরসনকল্পে বিভিন্ন প্রকল্পের বাস্তবায়ন অগ্রগতি পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। সভায় স্থানীয় সরকার বিভাগ, পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় এবং গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিবরা অংশ নেবেন।

এছাড়া চট্টগ্রাম সিটি মেয়র, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও প্রধান প্রকৌশলী, চট্টগ্রাম ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক, চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান এবং বাস্তবায়নাধীন প্রকল্পগুলোর পরিচালকদের উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছে।

জলাবদ্ধতা নিরসনে চট্টগ্রামে চারটি প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে। প্রকল্পগুলোর মধ্যে নগরের জলাবদ্ধতা নিরসনে পাঁচ হাজার ৬১৬ কোটি টাকা ব্যয়ে 'চট্টগ্রাম শহরের জলাবদ্ধতা নিরসনকল্পে খাল পুনঃখনন, সম্প্রসারণ, সংস্কার ও উন্নয়ন' প্রকল্প এবং দুই হাজার ৩১০ কোটি টাকা ব্যয়ে 'কর্ণফুলী নদীর তীর বরাবর কালুরঘাট সেতু হতে চাক্তাই খাল পর্যন্ত সড়ক নির্মাণ' প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ)। এক হাজার ৬২০ কোটি টাকা ব্যয়ে 'চট্টগ্রাম মহানগরীর বন্যা নিয়ন্ত্রণ, জলমগ্নতা/জলাবদ্ধতা নিরসন ও নিস্কাশন উন্নয়ন' প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। এক হাজার ২৫৬ কোটি টাকা ব্যয়ে নগরের বাড়ইপাড়া থেকে কর্ণফুলী নদী পর্যন্ত খাল খনন করছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন।

বিষয় : চট্টগ্রাম জলাবদ্ধতা প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়

মন্তব্য করুন