কোম্পানীগঞ্জে চলমান হরতাল বন্ধে প্রশাসন কার্যকর ভূমিকা না নিলে বুধবার ২৪ ঘণ্টার ‘সর্বাত্মক’ অবরোধের আল্টিমেটাম দিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই এবং বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা। 

কোম্পানীগঞ্জ সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান বাদলের সমর্থকদের বিরুদ্ধে হরতালের নামে নৈরাজ্য সৃষ্টির অভিযোগ এনে তিনি এই আল্টিমেটাম ঘোষণা করেছেন।

গত শনিবার সকালে মিজানুর রহমান বাদলের গাড়িতে একদল দুর্বৃত্ত হামলা করে, তাতে আহত হন বাদল। বাদলের সমর্থকরা এ ঘটনায় কাদের মির্জাকে দায়ী করে ৪৮ ঘণ্টার হরতালের ডাক দেয়। বসুরহাট ও কোম্পানীগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে হরতালের সমর্থনে বাদল সমর্থকরা সড়ক অবরোধ করেন। পরে বসুরহাট থেকে দূরপাল্লার যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। সরকারি দপ্তর ও ব্যাংকে যেতেও গ্রাহকদের ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।

এমন পরিস্থিতিতে সোমবার সকাল ৯টায় বসুরহাট পৌরসভার জিরো পয়েন্টে বঙ্গবন্ধু চত্বরে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ আয়োজন করে কাদের মির্জার সমর্থকরা।

এসময় তিনি বলেন, ‘গত কয়েকদিন যাবত হরতালের নামে অবরোধ সৃষ্টি করে কোম্পানীগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে বাস, সিএনজি চালিত অটোরিক্সা ভাংচুর, লুটপাট ও চাঁদাবাজি করা হয়েছে। অথচ এএসপি শামীম, ওসি, ওসি (তদন্ত), ডিবির ওসি রবিউল, তাদেরকে গ্রেপ্তার করেনি। 

‘আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে এসব অরাজকতা সৃষ্টিকারীদের গ্রেপ্তার না করলে আগামী বুধবার কোম্পানীগঞ্জে সর্বাত্মক ২৪ ঘণ্টা অবরোধ থাকবে। এসময় রিকশা ছাড়া সকল ধরনের যানবাহন বন্ধ থাকবে। তবে দোকানপাট খোলা থাকবে। কোম্পানীগঞ্জে কঠিন অবরোধ পালন করা হবে।’

এরপর তিনি সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বসুরহাট পৌরসভার কার্যালয়ে নিজের ফেসবুক আইডি থেকে লাইভে এসে অভিযোগ করেন, নোয়াখালী-৪ (সদর ও সুবর্ণচর) আসনের এমপি মোহাম্মদ একরামুল করিম চৌধুরী, ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য নিজাম হাজারী ও ওবায়দুল কাদেরর স্ত্রী বাদলের সমর্থকদের ‘টাকা দিচ্ছেন’।

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ.সাহাব উদ্দিনের বিরুদ্ধে হরতাল-অবরোধে নিস্ক্রিয়তার অভিযোগ এনে তাকে গালমন্দ করেন মির্জা কাদের।

কোম্পানীগঞ্জের প্রতিটি ওয়ার্ডের আইনশৃঙ্খলা উন্নয়নে কমিটি গঠনে জোর দিয়ে মির্জা কাদের বলেন, ‘আমি স্পষ্ট ভাষায় বলতে চাই, কোম্পানীগঞ্জে আর অস্ত্রবাজি করতে দেওয়া হবে না, চাঁদাবাজি করতে দেওয়া হবে না। রাস্তায় রাস্তায় ডাকাতি ও লুটপাট করতে দেওয়া হবে না। জীবন দেব। তবুও এ এলাকার মানুষকে নিরাপত্তা দেব।’

সোমবার দুপুর ১২টায় তাদের ডাকা ৪৮ ঘন্টা হরতাল শেষ হবার কথা ছিল।তবে কাদের মির্জা ও তার দোসররা এখনও গ্রেপ্তার না হওয়ায় চলমান হরতালের সময়সীমা আরও ১২ ঘণ্টা বাড়িয়েছে বাদল সমর্থকরা।

সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের একাংশের মুখপাত্র মাহবুব রশিদ মঞ্জু তার ফেসবুক আইডি থেকে লাইভে এসে এ সিদ্ধান্ত জানান।


বিষয় : কোম্পানীগঞ্জ বসুরহাট আবদুল কাদের মির্জা

মন্তব্য করুন