মাছ চুরির অভিযোগ এনে খোকসা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়রম্যান আইয়ুব আলী ও তার লোকেরা ঘর থেকে ডেকে নিয়ে এক কৃষককে পিটিয়ে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই কৃষকের নাম জসীম শেখ (৩৫)। 

মঙ্গলবার ভোর ৪টার দিকে নামের ওই কৃষককে মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। ঘটনার পর থেকে ইউপি চেয়ারম্যান আইয়ুব পরিবারসহ আত্মগোপনে চলে গেছেন।

নিহত জসীম শেখ উপজেলার খোকসা ইউনিয়নের রতনপুরে গ্রামের রওশন আলীর ছেলে। তার স্ত্রী আছিয়া খাতুন জানান, মঙ্গলবার ভোর ৪টার দিকে তার স্বামীকে ফোন করে যেতে বলা হয়। জসীম বাড়ি থেকে বেড়িয়ে যাওয়ার কিছু সময় পর তার স্ত্রী জানতে পারেন চেয়ারম্যান ও তার লোকজন বাড়িতে আটকে রেখে তাকে মারধর করছে। পরে গ্রাম পুলিশ রাকিবুল ইমনের মাধ্যমে আশঙ্কাজনক অবস্থায় জসীমকে খোকসা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসা দেওয়ার আগেই সকাল সাড়ে ৬টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

তিনি আরও জানান, স্বামীর আহত হওয়ার খবর পেয়ে তিনি হাসপাতালে গিয়েছিলেন। কিন্তু চেয়ারম্যানের লোকজন তাকে স্বামীর কাছে যেতে বাধা দেয় এবং হাসপাতাল থেকে তাড়িয়ে দেয়। 

হাসপাতালের জরুরি বিভাগের মেডিকেল অফিসার ডা. আশরাফুল আলম জানান, মাথায় মারাত্মক জখমের কারণে তার (জসীমের) মৃত্যু হয়েছে।

কৃষককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগের বিষয়ে খোকসা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়রম্যান আইয়ুব আলীর সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করে তার ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। 

খোকসা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সৈয়দ আশিকুর রহমান জানান, খোকসার রতনপুরে এক যুবককে পিটিয়ে আহত করার পর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে। তবে কী কারণে হত্যাকাণ্ড ঘটেছে তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এ বিষয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিষয় : পিটিয়ে হত্যা খোকসা

মন্তব্য করুন