সরকারকে হঠাতে না পারলে গণতন্ত্র ও গণমাধ্যমের স্বাধীনতা আসবে না বলে মনে করেন নাগরিক ঐক্যরে আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না।  তিনি বলেছেন, গণতন্ত্রের জন্য গণমাধ্যমের স্বাধীনতা অপরিহার্য। কিন্তু র্বতমান সরকার গণতন্ত্র ও গণমাধ্যমের স্বাধীনতাই নয়, সব গণতান্ত্রিক ও সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান ধবংস করে দিয়েছে। র্বতমান স্বেরাচারী সরকারকে হঠাতে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তোলার ওপর গুরুত্বারোপ করেন তিনি।

মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবের আবদুস সালাম হলরুমে  বাংলাদশে ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন-বিএফইউজে ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনয়িন-ডিইউজের উদ্যোগে আয়োজিত এ আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। 

বিএনপি ও অনুসারী দল ও সংগঠন ১৬ জুন সংবাদপত্ররে কালো দিবস হিসেবে পালন করে। সভায় আরও বক্তব্য রাখেন ফরহাদ মজহার, বিএফইউজে ও জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি শওকত মাহমুদ, সাংবাদিক নেতা নুরুল আমিন রোকন, এম এ আজিজ, কাদের গনি চৌধুরী, মো. শহদিুল ইসলাম, ইলিয়াস খান প্রমুখ। সভাপতিত্ব করেন বিএফইউজে সভাপতি এম আব্দুল্লাহ। সঞ্চালনা করেন দিদারুল আলম দিদার।

কলামস্টি বুদ্ধিজীবী ফরহাদ মজহার বলেন, যারা এ সরকারের বিরোধিতা করেন তাদের গুমের শিকার হতে হয়। ভারতীয় আগ্রাসনের বিরুদ্ধে চেতনা যত দৃঢ় হচ্ছে সরকারের দমনীতিও ততটাই জোরালো হচ্ছে। গণ আন্দোলনের মাধ্যমে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা ফিরিয়ে আনতে হবে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

শওকত মাহমুদ বলেন, এ সরকারকে বিদায় করতে হবে। এরা ভূয়া নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতা আঁকড়ে আছে। তিনি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবি করেন। 

কাদের গনি চেৌধুরী বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৬ জুন ছিল সংবাদপত্র বিহীন একটি অন্ধকার দিন। সংবাদপত্রের স্বাধীনতা হরণের কালো দিন। এই সরকারকে বিদায় করতে হবে। নতুবা গণমাধ্যমের স্বাধীনতা আসবে না। 

সভাপতির বক্তব্যে এম আব্দুল্লাহ বলেন,, গত ১২ বছরে শত শত কালো দিবস তৈরি করেছে সরকার। এ সরকার গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে না। গণমাধ্যমরে স্বাধীনতায় বিশ্বাস করে না।


বিষয় : সংবাদপত্র কালো দিবস বিএফইউজে বিএনপি

মন্তব্য করুন