সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনা উপসর্গ নিয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে ১৮৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১০০ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। সংক্রমণের হার ৫৩ দশমিক ২০ শতাংশ।

এদিকে, সাতক্ষীরায় করোনা প্রতিরোধে দুই দফায় দুই সপ্তাহের জন্য লকডাউন ঘোষণা করা হয়। বুধবার লকডাউনের ১৩তম দিন অতিবাহিত হয়েছে। ১৭ জুন রাত ১২টা পর্যন্ত চলবে এ লকডাউন। তৃতীয় দফায় লকডাউন আরও বাড়ানো হবে কিনা সে ব্যাপারে বুধবার পর্যন্ত কোন সিদ্ধান্ত হয়নি। 

সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন ডা. হুসাইন সাফায়াত বলেন, সাতক্ষীরায় করোনা পরিস্থিতি দিন দিন মারাত্মক আকার ধারণ করছে। হাসপাতালগুলোতে করোনা রোগীর জায়গা দেয়া অসম্ভব হয়ে পড়ছে। এমন পরিস্থিতিতে লকডাউন বাড়ানো হবে কিনা সে ব্যাপারে বৃহস্পতিবার জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভায় সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডা. কুদরত-ই-খোদা বলেন, সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ইতোমধ্যে ১৫০টি করোনা বেড খোলা হয়েছে। সেখানে বর্তমানে রোগী ভর্তি রয়েছে ১৬৫ জন। আরও ৫০টি করোনা বেড বাড়ানোর চেষ্টা চলছে।

তিনি বলেন, দিন দিন রোগীর চাপ এতই বাড়ছে যে, চিকিৎসা সেবা দিতে ডাক্তার ও নার্সরা রীতিমতো হিমশিম খাচ্ছেন। প্রতিদিন অসংখ্য রোগী আসছে। রোগী আর ভর্তি নেয়া সম্ভব হচ্ছে না।

এদিকে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় যে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে তারা হলেন, সাতক্ষীরা সদর উপজেলার পাথরঘাটা গ্রামের হামিদা খাতুন (৫২), একই উপজেলার কাপাসডাঙ্গা গ্রামের গোবিন্দ্র (৬৫) ও কালিগঞ্জ উপজেলার রতনপুর গ্রামের কামাল হোসেন (৩৫)। 



বিষয় : সাতক্ষীরা করোনায় মৃত্যু করোনা ভাইরাস

মন্তব্য করুন