সরকারি নির্দেশনা মেনে রংপুরে হাঁড়িভাঙা আম বিক্রি শুরু হয়েছে। রোববার রংপুরের বদরগঞ্জ ও মিঠাপুকুর উপজেলার পদাগঞ্জ হাট, পাইকারের হাট, নাগেরহাটসহ বিভিন্ন হাটবাজারে উঠেছে হাঁড়িভাঙা আম। আম বিক্রির প্রথম দিন হাটগুলোতে তুলনামূলকভাবে ক্রেতার উপস্থিতি ছিল কম। 

এ ছাড়া গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির কারণে বাইরে থেকে ক্রেতারা হাটে আসতে পারেননি। এদিকে, বিক্রির প্রথম দিন হাটগুলোতে আমের দাম চড়া ছিল বলে জানিয়েছেন ক্রেতারা। 

রোববার বড় আম বিক্রি হয়েছে এক হাজার ৮০০ থেকে দুই হাজার টাকা মণ। সর্বনিন্ম বিক্রি হয়েছে এক হাজার ২০০ টাকা মণ।

রংপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর সূত্রে জানা যায়, আট উপজেলায় এক হাজার ৮৬৫ হেক্টর জমিতে চাষ হয়েছে হাঁড়িভাঙা আম। এর মধ্যে মিঠাপুকুর ও বদরগঞ্জ উপজেলায় বেশি আবাদ হয়েছে। এবার আমের গড় ফলন হয়েছে হেক্টরপ্রতি ১৫ টন, যার বাজারমূল্য প্রায় ১২৭ কোটি টাকা। আম বিক্রির জন্য অ্যাপ তৈরি, পরিবহনের জন্য বিশেষ বাস কিংবা ট্রেন সুবিধা নিয়ে রংপুরের মিঠাপুকুর পদাগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে চাষিদের সঙ্গে আলোচনা সভা করা হয়েছে।

রংপুর জেলা প্রশাসক আসিব আহসান বলেন, হাঁড়িভাঙা আম বিক্রি ও পরিবহনে চাষিদের সার্বিক সহযোগিতা দেওয়া হচ্ছে।