দেশের পূর্বাঞ্চলের সবচেয়ে ব্যস্ত ও গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দাউদকান্দি অংশে ঢাকাগামী লেনে ২০ কিলোমিটার সড়কজুড়ে তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়েছে। করোনা মহামারি থেকে রাজধানী ঢাকাকে বিচ্ছিন্ন রাখতে সাত জেলায় হঠাৎ করে লকডাউন ঘোষণা করায় এ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে বলে দাউদকান্দি হাইওয়ে পুলিশ জানিয়েছে।

ভুক্তভোগীরা জানান, মঙ্গলবার ভোর থেকে লকডাউন কার্যকর রাখতে হাইওয়ে পুলিশ মহাসড়কের দাউদকান্দি মেঘনা-গোমতী সেতুর টোলপ্লাজার বলদাখাল নামক এলাকায় তল্লাশি চৌকি বসিয়েছে। গণপরিবহন থেকে শুরু করে যাত্রীবাহী কোনো যানবাহনই ঢাকায় প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না। দূরপ্লালার যানবাহন না পেয়ে অফিসগামী মানুষ দুর্ভোগে পড়েছেন। আর যানজটটি দাউদকান্দি টোলপ্লাজা থেকে ইলিয়টগঞ্জ পর্যন্ত ২০ কিলোমিটারে পৌঁছেছে। দীর্ঘ সময় যানজটে আটকে থেকে যানবাহনের যাত্রী ও চালকদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। অনেকে দীর্ঘ সময় যানজটে আটকে থাকার পর হেঁটে গন্তব্যে যাচ্ছেন। তবে দুপুরের দিকে যানজট কিছুটা কমতে দেখা গেছে।

দাউদকান্দি হাইওয়ে পুলিশের ওসি জহুরুল হক জানান, রাজধানীর পাশের সাত জেলায় লকডাউন ঘোষণা করায় আমরা মহসড়কের দাউদকান্দি বলদাখাল এলাকায় চেকপোষ্ট বসিয়েছি। যাতে করে গণপরিবহন মুন্সিগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ ও ঢাকা জেলায় প্রবেশ করতে না পারে। এ ছাড়া ভোরে টোলপ্লাজা এলাকায় একটি বাস দুর্ঘটনার কারণে কিছুটা যানজটের সৃষ্টি হয়।