দেশের সব নদী বাঁচাতে পলিথিনের ব্যবহার বন্ধের দাবি জানানো হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকার কেরানীগঞ্জের খাগাইল দুর্গা মন্দির ঘাটে ওয়াটারকিপার্স বাংলাদেশ কনসোর্টিয়াম এর দূষণবিরোধী অ্যাডভোকেসি প্রকল্পের আয়োজনে ‘শিল্পী, শিল্প ও সংস্কৃতিতে নদীর প্রভাব’ শীর্ষক নদী কথন অনুষ্ঠানে আলোচকরা এ দাবি জানান।

তারা বলেন, নদী দূষণ কমাতে পলিথিন ও প্লাস্টিকের ব্যবহার বন্ধ করতে হবে। নদী বাঁচলে প্রাণ প্রকৃতি রক্ষা পাবে। টিকে থাকবে শিল্প ও সংস্কৃতি। 

অনুষ্ঠানে অভিনেতা হাসান মাসুদ বলেন, মৃতপ্রায় নদীগুলোকে সচল করতে হবে। নদী দখলকারীদের চিহিৃত করে শাস্তির আওতায় আনা জরুরি।

ওয়াটারকিপার্সের সমন্বয়ক ও বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনের (বাপা) সাধারণ সম্পাদক শরীফ জামিল বলেন, নদী বাঁচাতে বন্ধ করতে হবে পলিথিনের ব্যবহার। নদী ভিত্তিক যোগাযোগ ব্যবস্থাকে অগ্রাধিকার দিতে হবে। নদী রক্ষায় নতুন আন্দোলনের সূচনা করতে যাচ্ছি। এ জন্য তৈরি হবে গল্প, নাটক, সিনেমা।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভাষক ও ভিজ্যুয়াল আর্টিস্ট নাজমুন নাহার কেয়া বলেন, নদী নিয়ে সাধারণ মানুষের মাঝে সচেতনতা বাড়াতে তরুণ শিল্পীদের নিয়ে নদী বিষয়ক কিছু অনুষ্ঠান আয়োজনের কথা ভাবছি।

ফটো সাংবাদিক আবির আব্দুল্লাহ বলেন, মানুষের জীবনে নদীর প্রভাব অনেক। নদীর বহুমাত্রিক ব্যবহার রয়েছে। অথচ আমরা দখল করে নদীর ক্ষতি করছি।