ঝালকাঠির কাঁঠালিয়ায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় আরিফ আকন (২৫) নামে এক কলেজছাত্র নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন অন্তত আরও ১৫ জন। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় উপজেলার আমুয়া ইউনিয়নের বিলছোউনটা গ্রামের ৯৩ নং বিলছোনাউটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সামনে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় জ্ঞিাসাবাদের জন্য তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

নিহত আরিফ আকন একই উপজেলার বিলছোনাউটা গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য শিক্ষক মো. শাহআলম আকনের ছেলে। তিনি বাগেরহাট পিসি কলেজের বিএ তৃতীয় বর্ষের ছাত্র ছিলেন।

কাঁঠালিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) পুলক চন্দ্র রায় সমকালকে জানান, আমুয়া ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের (বিলছোনউটা) বিজয়ী প্রার্থী মজিবুর রহমানের কর্মী-সমর্থকরা পরাজিত প্রার্থী জিয়াউল হক ফারুকের এক কর্মীকে বাজারের একটি দোকানে আটকে রেখেছে- এমন খবর পেয়ে জিয়াউল হকের কর্মী-সমর্থকরা তাকে উদ্ধার করতে যায়। এ সময় উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় অন্তত ১৫ জন আহত হয়। এদের মধ্যে কলেজছাত্র আরিফ আকনকে গুরুতর আহত অবস্থায় প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে (আমুয়া) ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে রাত ৯টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

পুলিশের এই কর্মকর্তা আরও জানান, এ ঘটনায় রাতেই জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিনজনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।




বিষয় : ঝালকাঠি নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতা কলেজছাত্র নিহত

মন্তব্য করুন