জিনের ভয় দেখিয়ে নানা কৌশলে দুই কিশোরীকে দীর্ঘদিন ধরে ধর্ষণ করার অভিযোগে করা মামলার আসামি 'প্রতারক' সবুর মণ্ডল ওরফে সবুজকে গ্রেপ্তার করেছে পাংশা থানা পুলিশ। 

শনিবার রাতে রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার কলিমহর ইউনিয়নের নিজ গ্রাম প্রাণপুর থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

পাংশা থানার ওসি মাসুদুর রহমান জানান, ১৫ জুন দুই কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে আসামি সবুর মণ্ডল ওরফে সবুজের বিরুদ্ধে রাজবাড়ীর আদালতে দুটি মামলা করে। আদালতের নির্দেশে দুটি মামলাই পাংশা থানায় রেকর্ড করা হয়। প্রাথমিক তদন্তে ঘটনার সত্যতা মেলে। এরপর থেকে পুলিশ বেশ কয়েকবার অভিযান চালিয়েও সবুর মণ্ডলকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। শনিবার রাতে পুলিশ সবুরকে গ্রেপ্তার করে। প্রাথমিক পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে সে অপরাধ স্বীকার করেছে।

সবুর মণ্ডল তার বাড়িতে কথিত জিনের আসরে ডেকে নিয়ে দুই কিশোরীকে একাধিকবার ধর্ষণ করে এবং তার দোষ চাপায় জিনের ওপরে। একই এলাকার আরেক কিশোরীর বাবাকে ধনী করার প্রলোভন দেখিয়ে তার মেয়েকে ধর্ষণ করে সবুর। ধর্ষণের ঘটনা কাউকে জানালে জিন পুরো পরিবারকে পুড়িয়ে মারবে বলে কিশোরীকে ভয় দেখিয়েছিল সে। এভাবে ওই কিশোরীকে একাধিকবার ধর্ষণ করেছে সবুর।

এ ছাড়া জিনের মাধ্যমে চাকরি পাইয়ে দেওয়া, মামলা থেকে রেহাই পাওয়া, জমি উদ্ধারসহ বিভিন্ন কথা বলে মানুষের কাছ থেকে সে টাকা নিয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে।