চট্টগ্রামে মাইকে ডাকাত এসেছে বলে প্রচার করে র‌্যাবের অভিযানের সময় হামলার ঘটনায় চারজন চোরাই কাঠ ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। এছাড়া ৮ হাজার ঘনফুট চোরাই কাঠ জব্দ করা হয়েছে। 

গত রোববার অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার চারজন হলেন-নগরের বাকলিয়া থানার ১৮ নম্বর পূর্ব বাকলিয়া ওয়ার্ডের বলিরহাট এলাকার মৃত হাজী জানে আলমের ছেলে মো. ফোরকান, মৃত খলিলুর রহমানের ছেলে আব্দুল সাত্তার ও তার ভাই মো. শামশেদ আলম এবং ইয়াছিনের ছেলে মো. রাকিব।

র‌্যাব-৭ এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) এএসপি নূরুল আবছার বলেন, সরকারি বন থেকে বিপুল পরিমাণ চোরাই সেগুন কাঠ সংগ্রহ করে বিক্রির জন্য বলিরহাট এলাকায় মজুদ করা হয়েছে খবর পেয়ে বন বিভাগের কর্মকর্তাদের সহায়তায় অভিযানে যায় র‌্যাব। অভিযান শুরু হলে ঘটনাস্থলের পাশে বায়তুল জামান মসজিদে স্থানীয় চোরাই কাঠ ব্যবসায়ী টিটু ও নিজাম এলাকায় ডাকাত এসেছে বলে ঘোষণা দেয়। এতে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে ৫০-৬০ জন লোক জড়ো হয়ে র‌্যাব সদস্যদের উপর হামলা চালায়। হামলায় র‌্যাবের চারজন সদস্য ও বন বিভাগের দুইজন কর্মকর্তা আহত হন। তাদেরকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে ওই এলাকায় সাঁড়াশি অভিযান চালিয়ে ঘটনার মূল হোতা চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে ৮ হাজার ঘনফুট চোরাই কাঠ জব্দ করা হয়। সরকারি কর্তব্য কাজে বাধাদান ও হামলার অভিযোগে বাকলিয়া থানায় ৩৫-৪০ জন আসামির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এছাড়া চোরাই কাঠ জব্দের ঘটনায় বন আইনে পৃথক মামলা দায়ের করে বন বিভাগ।