খন্দকার ইশতিয়াক আহমেদ ডলারকে সভাপতি ও শফিউল আযম স্বপনকে সাধারণ সম্পাদক করে ২৩ সদস্যবিশিষ্ট নাটোর জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের জেলা কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। 

তবে স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ ঘোষিত এই কমিটির প্রতি অনাস্থা জ্ঞাপন করেছে নাটোর পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগ। তাদের অভিযোগ,ইশতিয়াক আহমেদ ডলার নাটোরের চিহ্নিত রাজাকার সোনা মিয়ার সন্তান।

মঙ্গলবার স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সভাপতি নির্মল কুমার গুহ এবং সাধারন সম্পাদক আফজালুর রহমান বাবু স্বাক্ষরিত ২৩ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয় নাটোরে। তিন বছরের জন্য ঘোষিত এই কমিটিকে আগামী এক মাসের মধ্যে কমিটি পূর্ণাঙ্গ করে কেন্দ্রীয় দপ্তরে পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এই কমিটি ঘোষনার পর আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল মালেক শেখসহ জেলা আওয়ামী লীগের বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী অভিনন্দন জানিয়ে ফেসবুক আইডিতে স্ট্যাটাস দিয়েছেন।  

অন্যদিকে এই কমিটিকে ‘পকেট কমিটি’ এবং ‘গঠনতন্ত্রের আদর্শবিরোধী এবং অবৈধ’ বলে দাবি করেছে পৌর ও উপজেলা কমিটিসহ দলে স্থান না পাওয়া নেতাকর্মীরা। তারা মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে নানা অভিযোগ তুলে ধরেন।


সংবাদ সম্মেলনে নাটোর পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মলয় কুমার রায় বলেন, ‘সম্প্রতি জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ কমিটি বিলুপ্ত করে কেন্দ্রীয় কমিটি। কিন্তু নতুন করে কমিটি ঘোষণা হয়েছে রাতের আধারে হঠাৎ করে। সংগঠনের কোনো নেতাকর্মীদের অবহিত না করে রাতের আধারে স্থানীয় আওয়ামী লীগের কিছু স্বার্থান্বেষী মহল নিজেদের স্বার্থ হাসিল করতে কেন্দ্রীয় নেতাদের সাথে যোগসাজশে এ পকেট কমিটির অনুমোদন করিয়েছে, যা স্বেচ্ছাসেবক লীগের গঠনতন্ত্র ও আদর্শবিরোধী। অযাচিত লোকজন দিয়ে গঠন করা কমিটির ফলে দলের সুনাম নষ্টের পাশাপাশি কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়বে।’

স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতারা অভিযোগ করেন, নবগঠিত জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটিতে যাকে সভাপতি করা হয়েছে তিনি শহরের চিহ্নিত রাজাকার সোনা মিয়ার সন্তান ইসতিয়াক আহম্মেদ ডলার। 

অধুনালুপ্ত জেলা কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক আহমেদ সেলিম বলেন, ‘আমরা রাজাকারের বংশধরদের কোথাও দেখতে চাই না। সংগঠনের নেতা কর্মীদের প্রশ্ন -একজন রাজাকারের ছেলে কীভাবে নাটোর জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি হয়?  রাজাকার সোনা মিয়া নাটোরে অনেক মানুষকে হত্যা করেছে, লুটপাট করেছে। সেই কুলাঙ্গারের সন্তান কিভাবে জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি হয় ?’

তিনি বলেন, নবঘোষিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক শফিউল আযম স্বপনকে কোনো দিন স্বেচ্ছাসেবক লীগের কোনো কর্মসূচিতে দেখা যায়নি । যারা রাতদিন পরিশ্রম করে স্বেচ্ছাসেবক লীগকে জেলায়  শক্তিশালী করেছে ,যারা বিএনপি-জামাতের নির্মম অত্যাচার সহ্য করেছে, জেল খেটেছে, বছরের পর বছর দলের জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করেছে তাদের অবমূল্যয়ান করা হয়েছে।’

মলয় কুমার ও আহমেদ সেলিম জানান, নতুন কমিটিতে পদবঞ্চিত নেতাকমীদের নিয়ে অবিলম্বে কাউন্সিলের মাধ্যমে নতুন কমিটি গঠন করা হবে। 

পৌর কমিটির অভিযোগের বিষয়ে খন্দকার ইশতিয়াক আহমেদ ডলারকে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি সাড়া দেননি। স্বেচ্ছাসেবক লীগের দায়িত্ব পাওয়া ডলার নাটোর পৌর এলাকার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হিসেবেও কর্মরত রয়েছেন।