গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় মদ খেয়ে অসুস্থ হয়ে মেহেদী হাসান সোহাগ (৩২) ও তৌফিকুজ্জামান সৈকত (৩০) নামে দুই যুবকের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন আরও পাঁচজন।

জানা গেছে, গোবিন্দগঞ্জ পৌর শহরের চকগোবিন্দ পাঠানপাড়ার আলমগীর হোসেন প্রধানের ছেলে মেহেদী হাসান সোহাগ, চক গোবিন্দ ঝিলপাড়ার মোশারফ হোসেনের ছেলে তৌফিকুজ্জামান সৈকত, চক গোবিন্দ পশ্চিম চৌমাথা এলাকার নুরুল ইসলামের ছেলে রানা (৩২), সাজু মিয়ার ছেলে রানা (২৮), মৃত বাদল চন্দ্রের ছেলে বাঁধন সরকার (২৬), বাপ্পী (২৮), অভি (৩০) সহ আরও কয়েকজন যুবক বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে  একসঙ্গে বসে মদ্যপান করেন।

এর প্রায় দুই ঘণ্টা পর তারা অসুস্থ হয়ে পড়েন। এরমধ্যে প্রথমে তৌফিকুজ্জামানকে স্থানীয় হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে রাত ১০টার দিকে মারা যান তিনি। এরপর শুক্রবার সকাল ১১টার দিকে বগুড়ায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন মেহেদী।

বাকি অসুস্থদের বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) ও রংপুর মেডিকেল কলেজ (রমেক) হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তাদের অবস্থাও আশঙ্কাজনক।

গোবিন্দগঞ্জ হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. শরিফুল ইসলাম জানান, সোহাগ, সৈকত ও রানা নামে তিন যুবককে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। অ্যালকোহল জাতীয় কিছু পান করার ফলে তারা অসুস্থ হয়ে পড়েন। এখানে অবস্থার অবনতি ঘটলে তাদের বগুড়া ও রংপুরে স্থানান্তর করা হয়।

গোবিন্দগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) তাজুল ইসলাম সমকালকে জানান, মৃতদের মারা যাওয়ার কারণ জানতে পুলিশ তদন্তে নেমেছে। তবে তাদের পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় কোনো অভিযোগ করা হয়নি। এ ব্যাপারে পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা কোন তথ্যও দেননি।