কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে শ্বশুরবাড়ি থেকে ঈদের দাওয়াত খেয়ে ফেরার পথে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় দুই ভায়রা নিহত হয়েছেন। শুক্রবার সন্ধ্যায় উপজেলার রায়গঞ্জ ইউনিয়নের বালিকা স্কুল মোড়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- নাগেশ্বরী শহরের বানিয়াপাড়া ফকিরটারী এলাকার আজিজুল ইসলামের ছেলে নয়ন মিয়া এবং তার ভায়রা ও উপজেলার বামনডাঙ্গা ইউনয়নের তেলিয়ানিরকুটি গ্রামের সইফুর রহমানের ছেলে হামিদুল ইসলাম। এদের মধ্যে মধ্যে নয়ন মিয়া নাগেশ্বরী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে মারা যায় এবং কুড়িগ্রাম হাসপাতালে নেওয়ার পর হামিদুল ইসলামের মৃত্যু হয়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রায়গঞ্জ ইউনিয়নের মিনা বাজার এলাকায় শ্বশুর বাড়িতে ঈদের দাওয়াত খেয়ে মোটরসাইকেল যোগে রায়গঞ্জ বাসস্ট্যান্ডের দিকে যাচ্ছিলেন নয়ন ও হামিদুল। তাদের বহনকারী মোটরসাইকেলটি রায়গঞ্জ বাসস্ট্যান্ডের কাছে বালিকা বিদ্যালয় মোড়ে পৌঁছলে চালক নিয়ন্ত্রণ হারান। এতে যানটি রাস্তার পাশের সুপারির গাছের সাথে জোড়ে ধাক্কা খায় এবং মোটরসাইকেল আরোহী দুইজন মারাত্মক আহত হন। পরে স্থানীয়রা তাদেরকে উদ্ধার করে নাগেশ্বরী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক নয়নকে মৃত ঘোষণা করেন। আহত হামিদুলের অবস্থা খারাপ হওয়ায় তাকে দ্রুত কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাতে তিনি মারা যায়।

নাগেশ্বরী থানার ওসি নবিউল হাসান জানান, মোটরসাইকেলটি দ্রুতগতিতে চালাচ্ছিলেন নয়ন মিয়া। এজন্য নিয়ন্ত্রণ করতে পারেননি। এ ব্যাপারে ইউডি মামলা হয়েছে।