কঠোর লকডাউনে যানবাহন নিয়ে সমস্যার মুখোমুখি হওয়া রোগীদের জন্য পরিবহন সেবা চালু করেছে চট্টগ্রামের ডবলমুরিং থানা পুলিশ। বৃহস্পতিবার স্থানীয়দের সহায়তায় অ্যাম্বুলেন্স ও সিএনজিচালিত অটোরিকশার মাধ্যমে বিনামূল্যের এ সেবা চালু করা হয়েছে। থানা প্রাঙ্গণে এ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের উপকমিশনার (পশ্চিম) আব্দুল ওয়ারীশ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত উপকমিশনার (পশ্চিম) পঙ্কজ দত্ত, সহকারী কমিশনার (ডবলমুরিং জোন) মাহমুদুল হাসান মামুন, ডবলমুরিং থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীন ও পরিদর্শক (তদন্ত) মাসুদ রানা।

উপপুলিশ কমিশনার (পশ্চিম) আব্দুল ওয়ারীশ বলেন, লকডাউনে যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকায় রোগীদের নিয়ে সমস্যায় পড়ছেন স্বজন। সামর্থ্যবানেরা অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া করে যেতে পারলেও বিপাকে পড়েছেন মধ্য ও নিম্ন আয়ের মানুষ। তাদের সবার কথা বিবেচনা করেই আমাদের এই বিনামূল্যে রোগী পরিবহন সেবা।

ডবলমুরিং থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীন জানান, বিনামূল্যের এই পরিবহন সেবা ২৪ ঘণ্টাই চালু থাকবে। ০১৩২০০৫২৭৪৯ নাম্বারে ফোন করলেই গাড়ি বাসার সামনে পৌঁছে যাবে। একইভাবে হাসপাতাল থেকে বাসায়ও পৌঁছে দেওয়া হবে। আপাতত ডবলমুরিং থানা এলাকার মধ্যেই এই কার্যক্রম সীমাবদ্ধ থাকবে। রোগীর অবস্থা বিবেচনায় বাইরেও এই সেবা দেওয়া হবে। গণপরিবহন চলাচল বন্ধ থাকা পর্যন্ত সিএনজির সেবা পাওয়া যাবে। তবে অ্যাম্বুলেন্স সেবা অব্যাহত থাকবে।

ডবলমুরিং থানা সূত্র জানায়, থানার এই আহ্বানে সাড়া দিয়ে একটি অ্যাম্বুলেন্স দিয়ে পাশে দাঁড়ান স্থানীয় বাসিন্দা মাশরাফুল ইসলাম শাকিল। এছাড়া একটি করে সিএনজি অটোরিকশা দেন সামাজিক সংগঠন ধনিয়ালাপাড়া বন্ধু মহল, মুহুরীপাড়া এলাকার ডলফিন ক্লাব, সিডিএ আবাসিক এলাকার আরএসকে ক্লাব, আগ্রাবাদের এসএস ট্রেডিং, পাহাড়তলী ঝর্নাপাড়ার সায়মা প্রোপার্টিজ এবং পাঠানটুলি খানবাড়ির আসাদ খান।