ঢাকা বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

শান্তি রোডে অশান্তির কারণ উন্মুক্ত বর্জ্য

শান্তি রোডে অশান্তির  কারণ উন্মুক্ত বর্জ্য

দেবিদ্বারের শান্তি রোড হাসপাতাল পুকুর-সংলগ্ন রাস্তায় বর্জ্যের স্তূপ সমকাল

দেবিদ্বার (কুমিল্লা) প্রতিনিধি

প্রকাশ: ০৩ ডিসেম্বর ২০২৩ | ০০:২৪

দেবিদ্বারে সরকারি হাসপাতাল পুকুর পাড় ও রাস্তায় ময়লা-আবর্জনা ফেলায় দুর্ভোগে পড়েছেন শান্তিরোড এলাকার বাসিন্দারা। নাকে রুমাল চেপে, নিঃশ্বাস বন্ধ করেও এ রাস্তা দিয়ে চলাচল কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে পথচারীদের।
স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, উপজেলা পরিষদ, সরকারি কলেজ, থানা গেট, মহিলা কলেজ, হাসপাতাল রোড কম দূরত্বে হওয়ায় স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীসহ অসংখ্য মানুষ চলাচল করে এ রাস্তা দিয়ে। পৌরসভায় নির্দিষ্ট ময়লা-আবর্জনা ফেলার স্থান বা ডাস্টবিন না থাকায় আবাসিক এলাকার বাসিন্দা ও দোকানিরা ময়লা ফেলে ভাগাড় বানিয়ে ফেলেছে স্থানটি। কুকুর, বিড়াল, কাক ময়লা-আবর্জনা ঘেঁটে পচা নাড়ি-ভুঁড়ি নিয়ে আসে সড়কে। মশা-মাছির ভনভন আর তীব্র দুর্গন্ধে দূষিত হচ্ছে পরিবেশ। ছড়াচ্ছে নানা রোগজীবাণু।
স্থানীয় বাসিন্দা সুদীপ রায় বলেন, এক সময় শান্তিরোডের হাসপাতাল পুকুরই ছিল এলাকার মানুষের নিত্যদিনের কাজে পানির প্রধান উৎস। ১৫-২০ বছর ধরে এই পুকুরে ময়লা-আবর্জনা ফেলে ভরাট করা হয়েছে। পুকুর ভরাট হওয়ার পর এখন রাস্তায় ময়লা-আবর্জনা ফেলা হচ্ছে। 
পৌর মেয়র সাইফুল ইসলাম শামীম বলেন, প্রতিষ্ঠার পর ১৭ বছর পৌরসভার নির্বাচিত কোনো প্রতিনিধি ছিল না। আমি নির্বাচিত হওয়ার পর ময়লা ফেলার জন্য নির্দিষ্ট স্থান নির্ধারণসহ ময়লা ব্যবস্থাপনায় বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছি। ১৫-২০ দিনের মধ্যে ময়লা-আবর্জনা নির্দিষ্ট স্থানে ফেলা হবে। এ ছাড়া শতবর্ষী হাসপাতাল পুকুরটি পুনঃখনন করে উন্মুক্ত জলাশয়ে পরিণত করা হবে।

আরও পড়ুন

×