গাজীপুরের শ্রীপুরে ছুঁড়ে মারা পেট্রোলের আগুনে দগ্ধ আরিফ হোসেন নিহত হওয়ার পাঁচদিন পর হত্যা মামলার দুই নম্বর আসামি মোফাজ্জল সরকারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। 

পাবনার আটঘরিয়া এলাকার সালাউদ্দিনের বাড়িতে আত্মগোপনে থাকা মোফাজ্জল সরকারকে শনিবার ভোরে গ্রেপ্তার করে শ্রীপুর থানায় নিয়ে আসা হয়। ঘটনার পর থেকে থানা পুলিশের একধিক টিম আসামিদের গ্রেপ্তারে সিরাজগঞ্জ, রাজশাহী, পাবনাসহ বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে আসছিল। 

কালিয়াকৈর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার আল মামুন ও শ্রীপুর থানর ওসি ( অপারেশন) গোলাম সারওয়ারের নেতৃত্বে রাতভর অভিযান পরিচালনার পর শনিবার ভোরে তাকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয় বলে জানান এ থানার ওসি খোন্দকার ইমাম হোসেন। 

চার দিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে অগ্নিদগ্ধ আরিফ গত সোমবার মধ্য রাতে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। 

শ্রীপুরের তেলিহাটী মোড়ে ঈদের পরদিন সন্ধ্যায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে এক পক্ষ পেট্রোল ছুঁড়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। অমানবিক এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় আরিফের শরীরের অর্ধেকের বেশি অংশ পুড়ে যায়। এ ঘটনায় নিহত আরিফের ভাই তোফাজ্জল হোসেন বাদী হয়ে একই এলাকার ফালু সরকারের ছেলে তোফাজ্জল সরকার, মোফাজ্জল সরকার ও তাজুল সরকারসহ অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন।