চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে চোরাচালানের আধিপাত্য বিস্তার ও টাকার ভাগবাটোয়ারাকে কেন্দ্র করে বোমাবাজির ঘটনায় জিয়ারুল ইসলাম (৫৫) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছে। 

শনিবার সন্ধ্যায় উপজেলার পাঁকা ইউনিয়নের জঙ্গলপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। সে উপজেলার পাঁকা এলাকার গাইপাড়া গ্রামের মৃত আবদুল গফুরের ছেলে এবং তার ছোট ভাই টুকু (৫০) আহত হয়েছেন।

দুর্লভপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুর রাজিব জানান, পূর্বশত্রুতার জের ও মাদক বিক্রির টাকা ভাগবাটোয়ারা নিয়ে দ্বন্দ্ব চলে মাদক ব্যবসায়ী দুটি পক্ষের মধ্যে। এর একটির নেতৃত্বে আছে পাঁকা ইউনিয়নের জঙ্গলপাড়া এলাকার মফিজুলের ছেলে আলম এবং অপরটির নেতৃত্বে একই এলাকার নুরুল ইসলামের ছেলে কোরাইশি। প্রায় আড়াই মাস আগে পার্শ্ববর্তী পাঁকা ইউনিয়নের কোরাইশি ও আলম গ্রুপের ইয়াবার চালান আটক করেন বিজিবি সদস্যরা। 

এ ঘটনায় তারা একে অপরকে দায়ী করে দু'পক্ষ সংঘর্ষে জড়ায়। তখন মফিজুলকে বোমা মেরে একটি চোখ নষ্ট করে দেয় কোরাইশি পক্ষ। এরই জের ধরে শনিবার রাতে আবারও দুটি পক্ষ বোমা নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে জিয়ারুল ও টুকু গুরুতর আহত হয়। পরে তাদের শিবগঞ্জ আনার পথে জিয়ারুল মারা যায় এবং টুকুকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। এ ঘটনায় গতকাল দুপুরে নিহতের স্ত্রী জোসনা বেগম বাদী হয়ে প্রতিপক্ষের ২৫ জনকে আসামি করে মামলা করেন।

এ ব্যাপারে শিবগঞ্জ থানার ওসি ফরিদ হোসেন জানান, জিয়ারুল ইসলামকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতলে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে হত্যা মামলা করেছে। তিনি আরও জানান, দু'পক্ষেরই বিরুদ্ধে একাধিক মামলা বিচারাধীন রয়েছে।