গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলায় লক্ষ্মী রাণী বাড়ৈ নামে স্বামী-সন্তানহারা ৭০ বছরের এক বৃদ্ধাকে অমানবিক নির্যাতন করা হয়েছে। তিনি বর্তমানে উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। 


গত বুধবার উপজেলার সাদুল্লাপুর ইউনিয়নের পলোটানা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ বিষয়ে কোটালীপাড়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। 


উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চিকিৎসাধীন লক্ষ্মী রাণী বাড়ৈ বলেন, আমাদের বাড়ির নগেন্দ্রনাথ বাড়ৈর ছেলে চিন্ময় বাড়ৈ (৩৫) গত বুধবার আমার রোপনকৃত একটি আম গাছ কেটে ফেলে। এ সময় আমি বাধা দিতে গেলে আমাকে বেদম মারধর করে। মামলা করলে আমাকে মেরে ফেলা হবে বলে হুমকি দেয়। 


লক্ষ্মী রাণী বাড়ৈর দেবরের ছেলে ছাত্রলীগ নেতা সম্রাট বাড়ৈ বলেন, আমার জেঠা বেঁচে নেই। তার কোন সন্তানও নেই। এর আগেও চিন্ময় বাড়ৈ আমার জেঠি মাকে ৩ বার মারধর করেছে। আমরা প্রতিবাদ করতে গেলে চিন্ময় বাড়ৈ আমাদেরকেও জীবননাশের হুমক দেয়। আমরা এর সুষ্ঠু বিচার চাই। 


এ বিষয়ে চিন্ময় বাড়ৈর কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, লক্ষ্মী রাণী বাড়ৈ উঠানে পড়ে গিয়ে ব্যথা পেয়েছেন। আমি তাকে মারধর করিনি। 


কোটালীপাড়া থানার ওসি মো. আমিনুল ইসলাম বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।