খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগীদের চিকিৎসায় ডেঙ্গু ইউনিট চালু হচ্ছে শনিবার। হাসপাতালের চতুর্থ তলায় ২০টি শয্যা নিয়ে এই ইউনিট চালু হবে। বৃহস্পতিবার দুপুরে হাসপাতালের চিকিৎসকদের সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়। তবে ডেঙ্গু রোগের চিকিৎসায় হাসপাতালে প্রয়োজনীয় দুটি মেশিনই নেই।

খুমেক হাসপাতালের পরিচালক ডা. মো. রবিউল হাসান জানান, গত বছর খুলনা অঞ্চলে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা ছিল খুবই কম। কিন্তু এ বছর ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। বর্তমানে এই হাসপাতালে তিনজন ডেঙ্গু রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছে। খুলনার আশপাশের জেলাতেও রোগী শনাক্ত হয়েছে। এ কারণে আগাম প্রস্তুতি হিসেবে আগামীকাল শনিবার থেকে ২০ শয্যার একটি ডেঙ্গু ইউনিট চালু করা হবে। মেডিসিন বিভাগের আওতাধীন চিকিৎসক ও নার্সরা ডেঙ্গু রোগীদের চিকিৎসা দেবেন। 

তিনি জানান, বর্তমানে ভর্তি থাকা রোগীদের ওই দিনই ডেঙ্গু ইউনিটে স্থানান্তর করা হবে। প্রয়োজন হলে শয্যা সংখ্যা বৃদ্ধি করা হবে। ডেঙ্গু পরীক্ষার কীট ও জনবলের সংকট নেই। চারটি আইসিইউ রয়েছে, আরও ১০টি আইসিইউ চালু করতে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

এদিকে খুমেক হাসপাতালের সেল সেপারেটর মেশিনটি ২০১৯ সাল থেকে নষ্ট রয়েছে। এ ছাড়া ডেঙ্গু রোগীদের প্লাটিলেট সরবরাহের জন্য একটি প্লাজমা অ্যাফারেসিস মেশিন প্রয়োজন। এ ব্যাপারে খুমেক হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. সুহাস রঞ্জন হালদার জানান, এ দুটি মেশিন সরবরাহের জন্য স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে চিঠি দেওয়া হয়েছে।