আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সরকার আমলা নির্ভর নয়, জনস্বার্থ নির্ভর। বুধবার রাজধানীর ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ (আইডিইবি) এর কাকরাইল মিলনায়তনে ১৫ আগস্টের শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, আগস্ট মাস এলেই বাংলার বাতাসে ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাই। ভোরের আকাশে লাল রক্ত দেখা দেয়। পৃথিবীর ইতিহাসে ১৫ আগস্টের হত্যাকাণ্ড সবচেয়ে বর্বর, নির্মম হত্যাকাণ্ড। 

নেতাকর্মীদের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, কী শিক্ষা নিলেন বঙ্গবন্ধুর কাছ থেকে? আজকে আমি স্বেচ্ছাসেবক লীগকে মানুষকে ভালোবাসার রাজনীতির শিক্ষা নেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। বঙ্গবন্ধু ছিলেন সততার ও সাহসের অনন্য প্রতীক। এ দুটি অস্ত্র যার কাছে আছে বিজয় তার হবেই। তিনি বলেন, স্বাধীনতার পূর্ণাঙ্গ ইতিহাস আমরা এখনও পাইনি। স্বাধীনতার বস্তুনিষ্ঠ ও পূর্ণাঙ্গ ইতিহাস নতুন প্রজন্মের দাবি, সময়ের দাবি। 

সরকার আমলা নির্ভর হয়ে পড়েছে- সাংবাদিকদের এ সংক্রান্ত প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, আমি বলতে চাই, আমাদের সবকিছুই এখনও এক জায়গায় আছে। সরকার-রাজনীতিবিদরা সিদ্ধান্ত নেন, আমলারা বাস্তবায়ন করেন। এ সরকার আমলা নির্ভর নয়, গণমুখী ও জনস্বার্থ নির্ভর।  

তিনি আরও বলেন, স্থায়ী লকডাউন কোনো সমাধান নয়। আমরা সচেতন হলে সবকিছু সহজেই নিয়ন্ত্রণে আসবে। পদ্মা সেতুতে আঘাতের বিষয়ে তিনি বলেন, অদক্ষতার জন্য শাস্তি দেওয়া হয়েছে। তবে এটি অদক্ষতা নাকি অন্তর্ঘাত খতিয়ে দেখতে হবে। 

আলোচনায় অংশ নিয়ে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুর রহমান বলেন, ১৫ আগস্টের ষড়যন্ত্র একদিনে হয়নি। এখনও নানা গন্ধ পাই। আজকে যে স্বেচ্ছাসেবক লীগ, সেদিনও ছিল। কিন্তু তাদের কোনো ভূমিকা দেখিনি। তবে আজকের স্বেচ্ছাসেবক লীগের একটি কর্মীও থাকতে কোনো ষড়যন্ত্র সফল হবে না বিশ্বাস করি। 

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম বলেন, ১৫ আগস্ট ছিল ষড়যন্ত্রের নীলনকশা। এই হত্যাকাণ্ডের মূল কারিগর ছিলেন জিয়াউর রহমান। 

স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ’র সভাপতিত্বে আলোচনা সভা সঞ্চালনা করেন স্বেচ্ছাসেবক লীগ কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক আফজালুর রহমান বাবু। সভায় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির সিনিয়র সহসভাপতি গাজী মেসবাউল হোসেন সাচ্চু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক একেএম আজিম, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিষয়ক সম্পাদক ওবায়দুল হক খানসহ কেন্দ্রীয়,  জাতীয় ও মহানগর নেতারা উপস্থিত ছিলেন। 

এতে আরও বক্তব্য রাখেন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহসভাপতি মুজিবুর রহমান স্বপন, কৃষিবিদ আবদুস সালাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক খায়রুল হাসান জুয়েল, সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান মোল্লা, প্রচার সম্পাদক রফিকুল ইসলাম বিটু, দপ্তর সম্পাদক আজিজুল হক আজিজ, ঢাকা মহানগর উত্তর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি ইসহাক হোসেন ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ সভাপতি কমরুল হাসান রিপন।