পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলার বাশবাড়ীয়া ইউনিয়ন যুবদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলামকে (৩৮) এক স্কুলছাত্রীকে ‘ধর্ষণের’ অভিযোগে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

‘ধর্ষণের’ দৃশ্য মোবাইল ফোনে ধারণ করার অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

‘ধর্ষণের’ শিকার ওই কিশোরীর বাবা শুক্রবার দশমিনা থানায় অভিযোগ দায়েরের পর তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে সমকালকে জানান দশমিনা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. জসীম।

নজরুল ইসলাম উপজেলার বাশবাড়ীয়া ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের পশ্চিম বাশবাড়ীয়া গ্রামের মোঃ সেকান্দার মোল্লার ছেলে।

ওসি মো. জসীম জানান, ‘ধর্ষণের’ শিকার কিশোরীর আর্তচিৎকারে এলাকাবাসী নজরুলকে আটক করেন। পরে তাকে মারধর করে পুলিশে খবর দেন তারা।

নজরুলের বিরুদ্ধে দশমিনা থানায় মাদক নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা রয়েছে। গত ২ জুন মাদকসহ আটকের পর নজরুল ইসলাম পুলিশের ওপর হামলা চালিয়ে হাতকড়াসহ পালিয়ে গিয়েছিলেন।

এছাড়াও তার বিরুদ্ধে পুলিশের ওপর ককটেল হামলা, এক গৃহবধূর শ্লীলতাহানি, জুয়া সহ দশমিনা থানায় ৬টি মামলা রয়েছে বলেও জানান ওসি। 

নজরুল ইসলাম গত ২১ জুন অনুষ্ঠিত বাশবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য পদে নির্বাচন করে পরাজিত হন। 

ওসি মোঃ জসীম জানান, নজরুলের মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়েছে এবং তার মোবাইল থেকে কিশোরীকে  ‘জোরপূর্বক ধর্ষণের’ ভিডিও উদ্ধার করা হয়েছে। শারীরিক পরীক্ষার জন্য কিশোরীকে পটুয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।