সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে মুজিবুর রহমান ওরফে আঙ্গুর মিয়া (৬৮) নামের এক আমৃত্যু সাজাপ্রাপ্ত যুদ্ধাপরাধীর মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে মারা যাওয়া মুজিবুর রহমান হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলার কুমারছানা গ্রামের মৃত দরছ উদ্দিনের ছেলে।

যুদ্ধাপরাধের দায়ে ২০১৬ সালে তাকে আমৃত্যু কারাদণ্ড দেন আদালত।

শুক্রবার সকালে অসুস্থ হয়ে পড়লে মুজিবুর রহমানকে কারাগার থেকে সিলেট এম. এ. জি. ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানেই তিনি মারা যান বলে জানান সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে জ্যেষ্ঠ জেল সুপার মুহাম্মদ মঞ্জুর হোসেন।

শ‌নিবার তিনি বলেন, মুজিবুর রহমান বার্ধক্যজনিত বিভিন্ন রোগে ভুগছিলেন। 

কারা সূত্র জানায়, মুজিবুরকে গ্রেপ্তারের পর ২০১৫ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়। ২০১৬ সালের ১ জুন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ তাকে আমৃত্যু কারাদণ্ড প্রদান করেন। পরবর্তীতে তাকে হবিগঞ্জ জেলা কারাগারে পাঠানো হয়। চলতি বছরের ২৫ মে তাকে হবিগঞ্জ জেলা কারাগার থেকে সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থানান্তর করা হয়। 

শুক্রবার বুকের ব্যথাসহ নানা রোগে অসুস্থ হয়ে পড়লে সহকারী সার্জন তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ওসমানী হাসপাতালে পাঠান। সেখানে নেওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক মুজিবুরকে মৃত ঘোষণা করেন। শুক্রবার বিকেলে ময়নাতদন্ত শে‌ষে মরদেহ তার স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

মুজিবুর রহমান ছাড়াও তার আরও দুই ভাইয়ের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের প্রমাণ পেয়ে দণ্ড দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল। এরমধ্যে একজনকে ফাঁসির আদেশও দেওয়া হয়েছে।