চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরে শাশুড়ির সহায়তায় এক গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। রোববার সকালে ভুক্তভোগী নারী তার শাশুড়ি ও অভিযুক্ত ব্যক্তিকে দায়ী করে একটা মামলা দায়ের করেছেন।   

 এ ঘটনায় পুলিশ রবিউল ইসলাম রবু(৪২) নামের এক ব্যক্তিকে আটক করেছে। তবে ওই নারীর শাশুড়ি এখনও পলাতক রয়েছেন।

গ্রেপ্তার রবিউল ইসলাম রবু রহনপুর পৌর এলাকার শেখপাড়া গ্রামের ইনুর ছেলে এবং রহনপুর পৌর যুবলীগের দপ্তর সম্পাদক ।

মামলা সূত্রে ও ভুক্তভোগী নারীর বক্তব্যে জানা যায় , ধর্ষণের শিকার নারীর স্বামী বিয়ের কিছুদিন পর কাজের জন্য চট্টগ্রামে যান। তিনি শাশুড়ির সঙ্গেই থাকতেন। গৃহবধূর শাশুড়ির (৪০) সাথে অভিযুক্ত রবিউল ইসলামের অনৈতিক সম্পর্ক ছিল।  বাড়িতে আসা যাওয়ার কারণে রবিউল ওই গৃহবধূর সঙ্গেও ভালো সম্পর্ক গড়ে তোলেন। এক পর্যায়ে রবিউলের নজর পড়ে  ওই গৃহবধূর ওপর। পরে শাশুড়ির সহায়তায় গত রোজার সময় খাবারের সাথে ঘুমের ওষুধ মিশিয়ে গৃহবধূকে অচেতন করে রবিউল ইসলাম রবু। এরপর তাকে টানা কয়েকদিন ধরে একাধিকবার ধর্ষণ করেন। বিষয়টি ভুক্তভোগী নারী জেনে গেলে তার শাশুড়ির কাছে এর বিচার চান। এক পযার্য়ে রবিউল ইসলাম রবু তার শাশুড়ির সহযোগিতায় গৃহবধূকে বিষয়টি চেপে যাওবার জন্য হুমকি দেন। ধর্ষণের বিষয়টি স্বামীকে জানালেও এর প্রতিকার পাননি ওই গৃহবধূ। পরে তিনি বাবার বাড়িতে চলে যান। এরপর বাবা - মায়ের সহয়োগিতায় থানায় অভিযোগ করেন। অভিযোগ পেয়ে পুলিশ রবিউল ইসলাম রবুকে আটক করে নিয়ে যায়।

গোমস্তাপুর থানার ওসি দিলীপ কুমার দাস জানান, গৃহবধূকে ধর্ষণের দায়ে গোমস্তাপুর থানায় একটি মামলা হয়েছে। তিনি আরও জানান, মামলাকারীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তদন্ত অব্যাহত রয়েছে। তবে ডাক্তারি রিপোর্ট পাওয়ার পর ঘটনাটি আরও পরিষ্কার হবে।