চরফ্যাসন উপজেলার শশীভূষণ থানায় বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে নবম শ্রেণি পড়ুয়া এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে আলামিন নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে মামলা করার পর পুলিশ আলামিনকে গ্রেপ্তার করে। আলামিন রসুলপুর ২নং ওয়ার্ডের আমিন মহাজনের ছেলে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, প্রতিবেশী হওয়ায় আলামিন প্রায়ই ওই ছাত্রীর বাড়িতে যাওয়া আসা করতেন। তাদের মধ্যে দু'বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক চলছিল। বুধবার সন্ধ্যায় আলামিন ওই ছাত্রীকে পালিয়ে বিয়ে করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে তার বাড়িতে ডেকে নিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করেন। ধর্ষণ শেষে রাতেই ওই ছাত্রীকে তার বাড়িতে চলে যেতে বলেন। নিরূপায় হয়ে ছাত্রী বিষয়টি আলামিনের ঘুমন্ত মাকে ডেকে তুলে জানান। আলামিনের মা রাতভর তাকে ঘরে আটকে রেখে সকালে ঘর থেকে বের করে দেন। বৃহস্পতিবার সকালে বিষয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান জহিরুল ইসলামকে জানানো হয়।

ইউপি চেয়ারম্যান জহিরুল ইসলাম জানান, ভিকটিমের পরিবার বিষয়টি নিয়ে আমার কাছে এলে তাদেরকে থানায় যেতে বলা হয়। পরে কী হয়েছে তা জানি না।

শশীভূষণ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রফিকুল ইসলাম জানান, ভিকটিমের বাবা আলামিনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করেছেন। আলামিনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে। ভিকটিমকে মেডিকেল পরিক্ষার জন্য ভোলা জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।