সিলেট বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনে পদত্যাগকাণ্ডের শেষ হচ্ছে না। প্রতিদিন বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা দল ছাড়ছেন। সর্বশেষ নগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ডের স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতারা পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন। 

শুক্রবার বিকেলে নগরীর মীরাবাজারে সভা করে পদত্যাগের ঘোষণা দেন নগরীর ২০নং ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক রায়হান বপ রাকু। তিনি জানিয়েছেন, বিএনপি নেতা অ্যাডভোকেট শামসুজ্জামান জামানের মতামতকে অবজ্ঞা করে ত্যাগী ও পরীক্ষিতদের স্বেচ্ছাসেবক দলের জেলা ও মহানগর কমিটিতে না রাখায় তারা পদত্যাগ করছেন।

গত ১৭ আগস্ট সিলেট জেলা ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক কমিটির পর সিলেট বিএনপিতে পদত্যাগ পর্ব শুরু হয়। শুক্রবার স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাদের মধ্যে পদত্যাগ করেন নগরীর ২১নং ওয়ার্ডের আহ্বায়ক কাউন্সিলর আব্দুর রকিব তুহিন, ৬নং ওয়ার্ডের আহ্বায়ক আব্দুল হান্নান, ১৯নং ওয়ার্ডের আহ্বায়ক মাসুক গাজী, ১৭নং ওয়ার্ডের আহ্বায়ক বিলাল আহমদ খান, ১০নং ওয়ার্ডের আহ্বায়ক মিজানুর রহমান, ১১নং ওয়ার্ডের সেলিম আহমদ, ১০নং ওয়ার্ডের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক শামীম আহমদ খান, ২০নং ওয়ার্ডের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক আকবর হোসেন কয়ছর, ৩নং ওয়ার্ডের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক মামুন আহমদ, ২৩নং ওয়ার্ডের দেলোয়ার হোসেন, ২০নং ওয়ার্ডের আহ্বায়ক ফারুক হোসেন, ২১নং ওয়ার্ডের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক মস্তফা কামাল ফরহাদ ও শাহজান আহমদ।

গত ১৮ আগস্ট অ্যাডভোকেট জামান ক্ষুব্ধ হয়ে বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদকের পদ থেকে ছাড়েন। এরপর জেলা ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের নতুন কমিটির ১০ জন নেতা এবং মহানগর তাঁতীদলের শীর্ষ তিন নেতা পদত্যাগ করেন। এই ধারাবাহিকতায় গত বুধবার উপজেলা পর্যায়ে স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক, সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়কসহ শতাধিক নেতাকর্মী পদত্যাগ করেন। এখন পর্যন্ত পদত্যাগী নেতাদের প্রায় সবাই সিলেট বিএনপির রাজনীতিতে অ্যাডভোকেট জামানের অনুসারী হিসেবে পরিচিত।