মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে লাঠি এক ব্যক্তি তার বাবাকে পিটিয়ে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

মঙ্গলবার রাতে উপজেলার আলীগর চা-বাগানের ফাঁড়ি কামারছড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত শ্যামলাল রবিদাস (৪৫) বাগানের শ্রমিক। এ ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত ছেলে নন্দলাল রবিদাস (২২) পলাতক। ঘটনার খবর পেয়ে রাতেই কমলগঞ্জ থানা পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে গেছে।

কামারছড়া চা-বাগান সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার রাতে চা-বাগানে সাপ্তাহিক মজুরি নিয়ে নিহতের স্ত্রী শনিছড়ি রবিদাস বাড়ি ফিরছিলেন। পথে মদ্যপ অবস্থায় থাকা তার স্বামী শ্যামলাল রবিদাস মজুরির পাওয়া ৯০০ টাকা থেকে কিছু টাকা দাবি করে। এসময় স্বামীকে ২০০ টাকা দিলে সে আরও টাকা দাবি করার পর টাকা না দিলে হাতে পাওয়া ২০০ টাকা ছিড়ে ফেলে।

এ ঘটনায় তর্কবিতর্কের এক পর্যায়ে ছেলে নন্দলাল রবিদাস একটি লাঠি দিয়ে বাবা শ্যামলালের মাথায় আঘাত করলে ঘটনাস্থলেই তিনি মাঠিতে লুটিয়ে পড়েন। অবচেতন অবস্থায় শমসেরনগর ক্যামেলিয়া ডানকান ফাউন্ডেশন হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এরপর ছেলে নন্দলাল রবিদাস পালিয়ে যায়।

কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইয়ারদৌস হাসান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য বুধবার সকালে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে। অভিযুক্তকে  আটকের চেষ্টা চলছে।’