গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমম্বয়কারী জোনায়েদ সাকি বলেছেন, আগামী জাতীয় নির্বাচন অবশ্যই অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের অধীনে হতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকেই এ ব্যবস্থা করতে হবে। যদি তিনি ২০১৮ সালের মতো ভিন্ন কৌশলে নির্বাচন করার জন্য নতুন খেলা শুরু করেন তাহলে আওয়ামী লীগ সরকারকে কঠিন খেসারত দিতে হবে। গণঅভ্যুত্থানের মাধ্যমে এই সরকারের বিদায় হবে।

গণসংহতি আন্দোলনের ১৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বুধবার বিকেলে নগরীর অশ্বিনী কুমার হলের সামনে দলের জেলা শাখা আয়োজিত সমাবেশে বক্তব্য দেন জোনায়েদ সাকি। 

তিনি আরও বলেন, আমরা ছোট দল হতে পারি। কিন্তু আমাদের নৈতিক শক্তি অনেক বেশি। বিএনপির নৈতিক শক্তি নেই বলেই তারা আন্দোলন-সংগ্রামে পিছিয়ে আছে। আর কিছু দল আছে যারা ভাবেন আওয়ামী লীগের পতন হলে বিএনপি ক্ষমতায় যাবে, এই যুক্তি দেখিয়ে তারাও আন্দোলন সংগ্রামে নামছেন না। আর এই সুযোগে ২০২৩ সালের নির্বাচন নিয়ে আওয়ামীলীগ সরকার নতুন করে খেলা দেখানোর পায়তারা করছেন। 

জোনায়েদ সাকি বলেন, আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ষড়যন্ত্রে পুলিশ বাহিনী ও সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা যুক্ত হলে তাদেরকেও জনগণের গণঅভুত্থানের মুখোমুখি হবে। শেখ হাসিনার ফ্যাসিষ্ট সরকার বেশিদিন ক্ষমতায় থাকলে দেশের পরিস্থিতি ভয়াবহ হবে। তাই সকল রাজনৈতিক দলগুলোকে অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে আন্দোলনে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান। 

গণসংহতি আন্দোলনের জেলা সমম্বয়কারী দেওয়ান আব্দুর রশিদ নীলুর সভাপতিত্বে সমাবেশে স্থানীয় নেতারা বক্তব্য প্রদান করেন।