নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে ভাড়া পাঁচ টাকা বেশি চাওয়ায় বাকবিতণ্ডার জের ধরে এক ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চালককে কুপিয়ে হত্যা করেছে অটোরিকশার এক যাত্রী। বৃহস্পতিবার দুপুর ১টার দিকে উপজেলার চৌমুহনী পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ডের গনিপুর মহল্লায় এ ঘটনা ঘটে। 

নিহত অটোচালকের নাম মো.আবুল হোসেন (৪০)। তিনি চৌমুহনী পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ডের গনিপুর মহল্লার মৃত চাঁন মিয়ার ছেলে। ঘাতক মোর্শেদ আলম (৪৫) চৌমুহনী গনিপুর মহল্লার হেদু মিয়ার ছেলে। ঘটনার পর থেকে তিনি পলাতক আছেন।

বেগমগঞ্জ মডেল থানা পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার দুপুর একটার দিকে অটোচালক আবুল হোসেন চৌমুহনী রেল স্টেশন থেকে মোর্শেদ নামের এক যাত্রীকে নিয়ে গনিপুরে যান। মোর্শেদ সেখানে নামার পর আবুল হোসেন তার কাছে ২৫ টাকা ভাড়া দাবি করেন। যাত্রী মোরর্শেদ ২০ টাকার বেশি দেবেন না বলে জানান। এটা নিয়ে বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে মোর্শেদ তার সঙ্গে বাজারের ব্যাগে থাকা ধারালো দা দিয়ে আবুল হোসেনের গলায় কোপ দেয়। এতে তার শ্বাসনালি কেটে যায়। স্থানীয় লোকজন গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুপুর ২টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক স্বাস্থ্য কর্মকর্তা সৈয়দ মহিউদ্দিন আবদুল আজিম জানান, গলায় ধারালো অস্ত্রের আঘাতে আহত এক ব্যক্তিকে দুপুর ১টা ৪০ মিনিটে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে আনা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২০ মিনিট পর তিনি মারা যান। শ্বাসনালী কেটে গিয়ে প্রচুর রক্তক্ষরণে তার মৃত্যু হয়েছে।

বেগমগঞ্জ মডেল থানার ওসি মুহাম্মদ কামরুজ্জামান শিকদার বলেন, মাত্র পাঁচ টাকা অটো ভাড়ার জন্য একজন শ্রমজীবী মানুষকে নির্মমভাবে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে রয়েছে। অভিযুক্ত আসামিকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ। এই ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।