নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাট পৌরসভার মেয়র ও সেতুমন্ত্রীর ছোটভাই আব্দুল কাদের মির্জা বলেছেন, ‘আজ দেশে কোনো বিরোধী দল নেই। আওয়ামী লীগ একতরফাভাবে দেশ চালাচ্ছে। দেশে দুঃশাসন চলছে। বলার কেউ নেই। ক্ষমতায় বেশি দিন থাকলে যা হওয়ার, তাই হচ্ছে। এখন আওয়ামী লীগ নেতারা আখের গোছানোর কাজে ব্যস্ত।’

শনিবার সকাল ১১টায় বসুরহাট পৌরসভা মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলন করে এ কথা বলেন তিনি। এসময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন, মেয়রের অনুসারী কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ইস্কান্দার হায়দার চৌধুরী বাবুল, সাধারণ সম্পাদক মো. ইউনুছ, বসুরহাট পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি জামাল উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক আবুল খায়ের প্রমুখ।

কাদের মির্জা বলেন, ‘বিএনপি দুর্নীতিতে পাঁচবার বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। আমার নেত্রীকে বলছি, আপনি খোঁজখবর নিন, আপনার দলীয় লোকেরা আপনাকে শেষ করে দিচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘নোয়াখালীর এমপি একরামুল করিম চৌধুরী তার পরিবারকে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য প্রতি সেক্টরে দুর্নীতি করছেন। জেলার প্রতিটি উপজেলায় প্রশাসনকে দিয়ে একরাম রাজত্ব কায়েম করছেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ মশিউর রহমান রাঙ্গা একজন চাঁদাবাজ, তিনি পরিবহন নেতা, পরিবহন সেক্টরের চাঁদাবাজির সব টাকা তার কাছে আসে। রাঙ্গা আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অপবাদ দিয়েছেন, আমি নাকি তাদের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক স্বপনকে মারধর করেছি।’

কাদের মির্জা বলেন, ‘সেতুমন্ত্রীআমাকে ডেকে নিয়ে কোম্পানীগঞ্জের শান্তির জন্য, অস্ত্র উদ্ধারের জন্য, মামলাগুলো শেষ করার জন্য প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। অথচ দুই মাস পেরিয়ে গেলেও তিনি কিছুই করেননি। আমি সেতুমন্ত্রীকে সাতদিন সময় দিলাম, এরমধ্যে কোম্পানীগঞ্জের শান্তি, অস্ত্র উদ্ধার ও মামলার সমাধান না করলে, কোম্পানীগঞ্জের প্রতিটি ইউনিয়ন ও বসুরহাট পৌরসভার প্রতিটি ওয়ার্ডে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করা হবে। এরপরও দাবি না মানলে হরতাল ও অবরোধের মতো কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে।