বরিশালে নিজ বাসা থেকে অবসরপ্রাপ্ত এক নারী ব্যাংক কর্মকর্তার মরদেহ উদ্ধার করেছে মহানগরের কাউনিয়া থানা পুলিশ। সোমবার সকা‌ল ৮ টায় নগরীর পশ্চিম কাউনিয়ার হাওলাদার সড়কের 'শুভ্র নীর' থেকে ওই নারীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

সালেহা বেগম (৬৭) সোনালী ব্যাংকের প্রিন্সিপাল অফিসার ছিলেন।

ইত্যোমধ্যে বরিশাল মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার মো. এনামুল হক এবং উপ-পুলিশ কমিশনার (উত্তর) মো. জাকির হোসেন মজুমদার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।  

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সালেহা বেগম সোনালী ব্যাংকে ২৫ বছর চাকরি করেন। পরে তিনি প্রতিবন্ধী ছেলেকে দেখাশোনা করার জন্য ২০০৫ সালে সেচ্ছায় অবসর নেন। এরপর থেকে তিনি পশ্চিম কাউনিয়া হাওলাদার সড়কে নিজ বাসায় বসবাস করতেন। স্বামী ও প্রতিবন্ধী ছেলে মারা যাওয়ার পর তিনি দুই মেয়ে সূচী ও সুমাকে নিয়ে থাকতেন। বড় মেয়ে সুমা বিয়ের পর স্বামীর সঙ্গে ঢাকায় বসবাস করেন। আর ছোট মেয়ে চিকিৎসক সূচী মায়ের সাথেই থাকতেন। দুই দিন আগে ডা. সূচী অফিসের কাজে ঢাকায় যান। সকালে বাসায় ফোন দিয়ে তার মাকে না পেয়ে পাশ্ববর্তী বাসিন্দা রশিদের স্ত্রী হেলেনাকে ফোন করে খোঁজ নিতে বলেন। হেলেনা পার্শ্ববর্তী আরেক বাসিন্দা ব্যাংকার হাকিমকে সাথে নিয়ে ওই বাসায় যান। তারা দেয়াল টপকে বাড়ির মধ্যে ঢুকে জানালা দিয়ে সালেহার মরদেহ মেঝেতে পড়ে থাকতে দেখেন। তাৎক্ষণিক তারা ৯৯৯ এ ফোন করলে কাউনিয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বাসার দরজা ভেঙে ভিতরে ঢুকে সালেহার লাশ উদ্ধার করে।

কাউনিয়া থানার ওসি মো. আজিমুল করিম জানান, মৃত সালেহার শরীরে কোন আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। এটা স্বাভাবিক মৃত্যু হতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হ‌চ্ছে।

তিনি আরও জানান, তার মেয়েরা আসার পর আলোচনা করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।