গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি বলেছেন, `সরকার আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে অন্যায় কাজে ব্যবহার করছে। তাদের দিয়ে রাতের আঁধারে ভোট ডাকাতি, গুম, খুনসহ বিরোধী দল দমনে অন্যায়-অত্যাচার চালিয়ে যাচ্ছে।'

সোমবার সকালে রংপুর নগরীর একটি কমিউনিটি সেন্টার মিলনায়তনে জেলা গণসংহতির উদ্যোগে ১৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

জোনায়েদ সাকি বলেন, `অনেক দায়িত্ববান কর্মকর্তা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অপরাধ দমনে কাজ করছেন। সম্প্রতি রংপুরে মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান চালাতে গিয়ে একজন পুলিশ কর্মকর্তা প্রাণ হারিয়েছেন। অপরাধ দমনে পুলিশের সুনাম থাকলেও নির্দিষ্ট সংখ্যক কর্মকর্তা সরকারের আনুকূল্য পেয়ে এ সুনাম নষ্ট করছেন। তারা জনগণের বিরুদ্ধে গোষ্ঠীস্বার্থে ব্যবহৃত হচ্ছে। ফলে দেশে অন্যায়ের অভয়ারণ্য তৈরি হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘দেশে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি থাকলেও সেদিকে সরকারের কোনো দৃষ্টি নেই। করোনাকালে স্বাস্থ্য খাতে ব্যাপক দুর্নীতি হয়েছে। অক্সিজেন কেনাবেচাসহ মানুষের জীবন নিয়ে দালালি হয়েছে। শিক্ষা একটি ভয়াবহ জায়গায় গিয়ে পৌঁছেছে। এর মূলে রয়েছে জবাবদিহিহীন সরকার। দেশে সুষ্ঠু ভোট না থাকলে কোথাও শৃঙ্খলা বা নূ্যনতম জবাবদিহিতার ব্যবস্থা কায়েম হতে পারে না। সমস্যা সমাধানে দেশে জবাবদিহিতার সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। রাষ্ট্রের একটি গণতান্ত্রিক রূপান্তর, সংবিধানের গণতান্ত্রিক সংস্কার প্রয়োজন রয়েছে। এ জন্য জাতীয় ঐকমত্য দরকার। আওয়ামী লীগ একটি জনগুরুত্বপূর্ণ দল। তারা যদি রাজনৈতিক সমঝোতায় না আসে তাহলে তাদের গণঅভ্যুত্থান মোকাবিলা করতে হবে।’

এসময় জেলা শাখার সভাপতি তহিদুল ইসলামসহ স্থানীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন।