এক ঘর থেকে প্রেমিক-প্রেমিকার রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার রাতে ঘটনাটি ঘটে গাজীপুরের কালীগঞ্জ উপজেলার বক্তারপুর ইউনিয়নের সাতানীপাড়া গ্রামে। নিহতরা হলেন- হৃদয় গোমেজ (২৫) ও ইভানা রোজারিও (২২)। পুলিশ জানিয়েছে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিল।

নিহত হৃদয় উপজেলার বক্তারপুর ইউনিয়নের সাতানীপাড়া গ্রামের মৃত সমর গোমেজের ছেলে। ইভানা একই উপজেলার তুমলিয়া ইউনিয়নের বান্দাখোলা গ্রামের স্বপন রোজারিওর মেয়ে।

ঘটনাটি নিশ্চিত করে কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনিসুর রহমান জানান, বুধবার সকালে হৃদয়ের মা জমি দলিলের কাজে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান। এরপর প্রেমিকা ইভানাকে বাড়িতে ডেকে আনেন হৃদয়। পরে দিনের কোনো একসময় প্রেমিকাকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা শেষে হৃদয় নিজের পেটে ছুরি দিয়ে আঘাত করে আত্মহত্যা করেন। রাত সাড়ে ১০টার দিকে পুলিশ তাদের রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার করে।

ওসি বলেন, বন্ধ ঘর থেকে দু'জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এ সময় হৃদয়ের পেটে ছুরিকাঘাত ও হাতে ছুরি ছিল। ইভানার গলায়ও ছুরিকাঘাত ছিল। ঘরের মেঝেতে পড়ে ছিল দু'জনের মরদেহ। তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিল, যা পরিবার মেনে নেয়নি। সেই অভিমানে দু'জন এই ঘটনা ঘটাতে পারে।

ওসি আনিসুর রহমান আরও বলেন, মরদেহ দুটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন মেডিকেল কলেজ হাসপতালে পাঠানো হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন হাতে পাওয়ার পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

স্থানীয়রা জানান, চার-পাঁচ বছর ধরে হৃদয় ও ইভানার মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক, যা দুই পরিবারই জানত। হৃদয় গোমেজ ব্র্যাকে চাকরি করতেন। ইভানা রোজারিও ঢাকার উত্তরার একটি নার্সিং ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থী ছিলেন।