গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে ৩ ঘণ্টার মধ্যে মধুমতি নদীতে বিলীন হয়েছে মালামালসহ ভাটিয়াপাড়া বাজারের ২৫টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। এতে প্রায় দুই কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। 

নদীতীরে ফাটল ধরে আরও ২০/২২টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাঙনের কবলে পড়েছে। হুমকির মুখে পড়েছে বাজারের শতাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন স্থাপনা। পানি উন্নয়ন বোর্ড ভাঙন রোধে জিও ব্যাগ ফেলতে শুরু করেছে।

গোপালগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নিবার্হী প্রকৌশলী মো. ফইজুর রহমান, কাশিয়ানী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রথীন্দ্র নাথ রায়সহ পদস্থ কর্মকর্তারা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান। তারা ভাঙন প্রতিরোধে কাজ করছেন। অনেক ব্যবসায়ী হুমকির মুখে পড়া দোকান সরিয়ে নিচ্ছেন।

শুক্রবার ভোরে কাশিয়ানী উপজেলার ভাটিয়পাড়া বাজার রক্ষা বাঁধ ভেঙে হঠাৎ করে নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যায় ২৫টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। ভোরে হঠাৎ করেই বাজার রক্ষা বাঁধে ফাটল ধরে। কেউ কিছু বুঝে ওঠার আগেই ব্যবসায়ীদের মালামালসহ ২৫টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যায়।

মধুমতি নদীতে বিলীন হয়ে গেছে ভাটিয়াপাড়া বাজারের ২৫টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান -সমকাল

ভাটিয়াপাড়া বাজার মসজিদের মুয়াজ্জিন মসজিদে আজান দিতে এসে প্রথম দেখেন বাজারের পশ্চিম পাশের মধুমতি নদীরতীরের অনেকগুলো ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে।

ভাটিয়াপাড়া বাজারের ব্যাবসায়ী জাকির হোসেন ও শশ্মান বিশ্বাস জানান, নদীতীরের বাঁধে বৃহস্পতিবারও কোনো ধরনের ফাটল ছিল না। বাঁধ এলাকা ছিল সুরক্ষিত। ভোরের আলো ফুটে ওঠার আগেই ভাঙন শুরু হয়। একে একে ২৫টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গ্রাস করে মধুমতি। ব্যবসায়ীরা এসব দোকান থেকে মালামাল পর্যন্ত বের করে নেওয়ারও সুযোগ পাননি। এর ফলে অনেক ব্যবসায়ী নিঃস্ব হয়ে পড়েছেন।

কাশিয়ানী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রথীন্দ্র নাথ রায় বলেন, 'নদী ভাঙনে দোকান বিলীন হওয়ায় ব্যবসায়ীরা অন্তত ২ কোটি টাকার ক্ষতির কথা জানিয়েছেন। ভাঙন রোধে আমরা দ্রুত জিয়ো ব্যাগ ফেলছি। বাজার রক্ষায় আমরা সর্বশক্তি নিয়োগ করছি।'