হবিগঞ্জের বাহুবলে প্রেমিকাকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে বন্ধুসহ প্রেমিককে গ্রেপ্তার করেছে থানা পুলিশ। 

গ্রেপ্তাররা  হলো-  নবীগঞ্জ উপজেলার ববকান্দি গ্রামের মৃত হুদ খাঁর ছেলে জুয়েল খাঁ ও তার বন্ধু বরগাঁও গাজী মোকাম গ্রামের মৃত আহম্মদ মিয়ার ছেলে জুনেদ মিয়া। এর আগে শুক্রবার রাতে নবীগঞ্জের বরগাঁও এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। তারা ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে। 

শনিবার বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করেন বাহুবল মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আলমগীর কবির।

তিনি জানান, জুয়েল খাঁর সঙ্গে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বাহুবল উপজেলার উত্তর ভবানীপুর গ্রামের ওই কিশোরীর পরিচয় এবং প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে জুয়েল দেখা করতে কিশোরীকে সিলেট শহরে আসতে বলে। গত ৬ অক্টোবর সিলেটে আসে ওই কিশোরী। পরে সিলেট কদমতলী থেকে জুয়েল ও তার বন্ধু জুনেদ মিলে শহরের তালতলা আবাসিক হোটেল সুফিয়ায় নিয়ে কিশোরীকে রাতভর ধর্ষণ করে। পরদিন ৭ অক্টোবর সকালে কিশোরীকে বাসে উঠিয়ে দুপুরে নবীগঞ্জের পানিউমদায় নামিয়ে দিয়ে জুনেদ মিয়া সটকে পড়ে।

পরে বিষয়টি স্বজনকে জানায় ওই কিশোরী। স্বজনরা এ বিষয়ে বাহুবল মডেল থানায় মামলা করে।

ওসি জানান, ওই কিশোরী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এ ছাড়া গ্রেপ্তারকৃতদের শনিবার বিকেলে আদালতে পাঠানো হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে কিশোরীকে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে তারা।