নরসিংদীর পলাশ উপজেলার ঘোড়াশাল রেলসেতুতে ছবি তুলতে গিয়ে আন্তঃনগর কালনী এক্সপ্রেস ট্রেনের ধাক্কায় অলি মিয়া (১৮) নামে এক তরুণ নদীতে পড়ে নিখোঁজ হয়েছেন। শনিবার বিকেলে ঘোড়াশাল নতুন রেলসেতুর মাঝখানে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিখোঁজ অলি নেত্রকোণার কেন্দুয়া উপজেলার বড়পাড়া গ্রামের মো. বজলুর রহমানের ছেলে।

অলির বন্ধু শাহজাহান জানান, নরসিংদীর মাধবদীতে চাচা ফজলুর রহমানের বাড়িতে বেড়াতে এসে শনিবার বিকেলে সাড়ে চারটায় তারা ঘোড়াশাল রেলস্টেশন এলাকায় অলিসহ ঘুরতে যান। একপর্যায়ে ছবি তোলার জন্য তারা রেলসেতুর মাঝখানে যান। এসময় ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা সিলেটগামী আন্তঃনগর কালনী এক্সপ্রেস সেতুতে চলে আসার পর দৌঁড়ে সেতুর একপাশে চলে যান শাহজাহান। কিন্তু অলি চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। এসময় ট্রেনের ধাক্কায় শীতলক্ষ্যায় পড়ে যান অলি। পরে তাকে আর খুঁজে পাওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে পলাশ ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার মো. হাদিউর ইসলাম শুভ বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসার পর টঙ্গীর ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দলকে খবর দেওয়া হয়। তারা এসে সন্ধ্যা ছয়টা থেকে ৭টা পর্ষন্ত উদ্ধার কাজ চালায় কিন্তু নিখোঁজ অলি মিয়াকে পায়নি।

তিনি জানান, উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে শনিবার সন্ধ্যার পর উদ্ধার কাজ সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়। রোববার সকালে আবারও উদ্ধার অভিযান শুরুর কথা রয়েছে। 

নরসিংদীর রেলওয়ে পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ উপ পরিদর্শক ইমায়েদুল জাহেদী জানান, খবর পেয়ে তারাও উদ্ধার অভিযানে অংশ নেন। কিন্তু নিখোঁজ অলিকে পাওয়া যায়নি।