গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা কিছুটা কমেছে। এ সময়ে নতুন করে করোনা আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে ১৫ হাজার ৯০৬ জনের। এ নিয়ে দেশটিতে মোট ৩ কোটি ৪১ লাখ ৭৫ হাজার ৪৬৮ জনের করোনা শনাক্ত হলো। একই সময়ে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৫৬১ জনের।

রোববার ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, একদিনের ব্যবধানে দেশটিতে সংক্রমণ কমেছে ২ দশমিক ৫ শতাংশ।

২০২০ সালের মার্চের পর বর্তমানে ভারতে সর্বনিম্ন সক্রিয় করোনা রোগী রয়েছে।  

এদিকে, টানা পঞ্চম দিনের মতো রোববারেও আসাম টানা পঞ্চম দিনও আসামে ৩০০ এর বেশি মানুষের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এদিন করোনা আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন ৩২৪ জন।

কেরালায় গত ২৪ ঘন্টায় ৮ হাজার ৯০৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এদিন করোনায় মারা গেছেন ৬৫ জন। হ

মহারাষ্ট্র নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ৭০১ জনের। নতুন করে মৃত্যু হয়েছে ৩৩ জনের।

পশ্চিমবঙ্গে গত দিনের তুলনায় ১২৮ জন বেশি করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। এ সময় নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৯৭৪ জন। দুর্গাপূজার পর থেকেই এ রাজ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে।

মহামারির এক বছর পেরিয়ে করোনাভাইরাস সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিল ভারত। গত এপ্রিলে রোগীর পাশাপাশি মৃতের সংখ্যা হু হু করে বেড়ে যাওয়া বড় চাপে ফেলেছিল দেশটির স্বাস্থ্য বিভাগকে।

ডেল্টা সংক্রমণে ভারতের সেই বিপর্যস্ত অবস্থার বিরূপ প্রভাব পড়েছিল বিশ্বের ভাইরাসবিরোধী লড়াইয়ের উপরও। বিশ্বে সবচেয়ে বেশি টিকা উৎপাদনকারী দেশ ভারত তখন টিকা রপ্তানির উপর নিষেধাজ্ঞা দেয়, ফলে অনেক দেশের টিকা পাওয়া অনিশ্চিত হয়ে পড়ে।

বছরের মাঝামাঝির পর ভারতে পরিস্থিতির উন্নতি হলেও টিকা রপ্তানির নিষেধাজ্ঞা এখনও ওঠেনি।

ভারতে এখনও পর্যন্ত করোনায় মারা গেছেন  ৪ লাখ ৫৪ হাজার ২৬৯ জন। একদিনে করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ১৬ হাজার ৪৭৯ জন। এ পর্যন্ত মোট করোনা থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন মোট ৩ কোটি ৩৫ লাখ ৪৮ হাজার ৬০৫ জন।