তিন ভাই। একজন রিকশা চালান। অন্য দুইজন যাত্রী। ঘুরে বেড়ান শহরজুড়ে। খালি বাসা লক্ষ্য করেন। এক ভাই ঢুকে পড়েন বাসায়। অন্য দুইজন দুই দিকে পাহারা দেন। এভাবে নগর জুড়ে চুরি করে বেড়ান তিন ভাই। একটি চুরির ঘটনা তদন্ত করতে গিয়ে তিন ভাইয়ের সন্ধান পেয়েছে চট্টগ্রাম নগরের কোতোয়ালী থানা পুলিশ। সোমবার পর্যন্ত টানা অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার তিন ভাই হলেন-ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগর থানার মীরপুর গ্রামের মৃত শহিদুল ইসলামের ছেলে মো. মঈনুদ্দিন মনির, ইব্রাহিম খলিল ও মো. রহিম। এছাড়া এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে মঈনুদ্দিন মনিরের স্ত্রী নয়নতারা আক্তার ও তাদের সহযোগী মো. জাহাঙ্গীরকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাদের কাছ থেকে চুরির এক লাখ পাঁচ হাজার টাকা, ৭০০ ইউএস ডলার ও ১৫টি ডায়মন্ডের রিংসহ স্বর্ণালঙ্কার উদ্ধার করা হয়।

কোতোয়ালী থানার ওসি নেজাম উদ্দীন বলেন, গত ১১ অক্টোবর এস এস খালেদ রোডের এবিসি মাহবুব হিলস নামের ভবনের তিন তলায় চুরির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় মামলা দায়ের করেন আবরারা বেগম নামে এক নারী। মামলাটির তদন্তে নেমে ইব্রাহিম খলিলকে শনাক্তের পর গ্রেপ্তার করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে চুরির কথা স্বীকার করে সে। তার দেয়া তথ্য অনুযায়ী তার দুই ভাই ও ভাইয়ের বউ এবং সহযোগীকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের কাছ থেকে বাসা থেকে চুরি যাওয়া টাকা, ডলার ও স্বর্ণালঙ্কার উদ্ধার করা হয়েছে।

তিনি জানান, মঈনুদ্দিন মনির এর আগেও গ্রেপ্তার হয়ে কারাগারে ছিলেন। সেখানে রান্নার কাজ করতে গিয়ে তার শরীর পেশীবহুল হয়ে উঠে। কারাগার থেকে জামিনে বের হয়ে নিয়মিত জিমে যেতেন মনির। চুরি করতে বের হয়ে তার দুই ভাইকে পাহারায় বসিয়ে সে টার্গেট করা বাসার ভবনের পাইপ বেয়ে উপরে উঠে যায়। ফ্ল্যাটের জানালার গ্রিল বাঁকা করে ঢুকে চুরি করে।