বগুড়ার শেরপুরে ফসলের মাঠ থেকে সন্ন্যাসীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তার নাম পোল্লাত চন্দ্র সরকার (৫৫)। 

রোববার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার বিশালপুর ইউনিয়নের নাগরপাড়া গ্রামের মাঠ থেকে লাশটি উদ্ধার করে বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।

পোল্লাত চন্দ্র সরকার জেলার নন্দীগ্রাম উপজেলার পেংহাজারকি উত্তরপাড়া গ্রামের মৃত কান্ত চন্দ্র সরকারের ছেলে। তিনি চিরকুমার এবং সন্ন্যাস জীবনযাপন করতেন।

শেরপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আজাহার আলী জানান, সকালে স্থানীয়রা ফসলের মাঠে কাজ করতে যান। একপর্যায়ে মাঠের মধ্যে থাকা একটি ইউক্যালিপটাস গাছের নিচে পোল্লাত চন্দ্রের লাশ পড়ে থাকতে দেখে থানায় খবর দেন। পরে পুলিশ এসে লাশটি উদ্ধার করে।

তিনি আরও বলেন, নিহতের শরীরে আঘাতের চিহ্ন নেই। তবে মাথার একপাশে সামান্য ক্ষত রয়েছে। ক্ষতস্থান থেকে রক্ত ঝরছিল। তাকে খুন করা হয়েছে; নাকি স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে, তা খতিয়ে দেখতে মরদেহ বগুড়ার শজিমেক হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পর মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।

এ বিষয়ে বিশালপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাকির হোসেন জানান, বেশ কিছুদিন ধরেই সন্ন্যাসী পোল্লাত চন্দ্র সরকার এ ইউনিয়নে অবস্থান করছিলেন। এলাকায় নির্জন স্থানে বসে মন্ত্র সাধনা করতেন তিনি। রোববার সকালে নাগরপাড়া গ্রামে ইউক্যালিপটাস গাছের নিচ থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।