শরীয়তপুর সদরের রুদ্রকর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম ঢালীর ওপর হামলা ও অফিস ভাঙচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর লোকজন এ হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ নৌকার প্রার্থীর। শুক্রবার রাত সোয়া ১১টার দিকে উপজেলার সুবচনী বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, নৌকার প্রার্থী প্রচারণা শেষে অফিসে বসলে বিদ্রোহী প্রার্থী আনারস প্রতীকের হাবিবুর রহমান ঢালীর লোকজন এসে নৌকার প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম ঢালীর ওপর হামলা চালায় এবং নির্বাচনী অফিস ভাঙচুর করে। এসময় সিরাজুল ইসলামের চোখ মারাত্মকভাবে জখম হয়। এ ঘটনায় অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। সিরাজুল ইসলামসহ ৩ জনকে আহত অবস্থায় শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসকরা ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। 

সিরাজুল ইসলামের এক কর্মী বলেন, 'আমরা প্রচারণা শেষ আমাদের নির্বাচনী অফিসে এসে বসলে বিদ্রোহী প্রার্থী হাবিবুর রহমান ঢালীসহ লোক জন দেশীয় অস্ত্র, হকিস্টিক, বোমা নিয়ে আমাদের ওপর হামলা করে। নির্বাচনী অফিস ভাঙচুর করে।' 

এ বিষয়ে জানতে  বিদ্রোহী প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদ্য বহিষ্কৃত সভাপতি হাবিবুর রহমান ঢালীকে একাধিকবার ফোন দিলেও রিসিভ করেননি।

পালং থানার পুলিশ পরিদর্শক আকতার হোসেন জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিত এখন শান্ত রয়েছে। হাবিুবর রহমান ঢালীর লোকজন পুলিশের ওপরও হামলা করেছিল। এখনও কাউকে আটক করতে পারিনি।