চট্টগ্রামে ফুটপাতে চাঁদাবাজিকে ঘিরে দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় দায়ের হওয়া চাঁদাবাজি ও হত্যাচেষ্টা মামলায় এক আসামিকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদ এবং অপর দুই আসামিকে জামিন দিয়েছেন আদালত। 

রোববার চট্টগ্রাম মেট্টোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সরোয়ার জাহানের আদালত এ নির্দেশ দেন। জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের আদেশ দেওয়া আসামির নাম মো. ওয়াহিদুল আলম। আর জামিন পাওয়া আসামিরা হলেন নয়ন দাশ ও আকাশ দাশ। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মহানগর অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার কামরুল হাসান।

পুলিশ জানায়, নগরীর মির্জারপুল এলাকায় ফুটপাতে দোকান বসিয়ে চাঁদা আদায় করে আসছিল স্থানীয় ছাত্রলীগ কর্মী পরিচয় দেওয়া মো. আরিফ ও ওয়াহিদুল। কিছুদিন আগে ফুটপাতের দোকানগুলো তুলে দেয় পুলিশ। গত বুধবার সেখানে দোকান বসান আরিফ। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে ওয়াহিদুল তার অনুসারীদের নিয়ে আরিফের ওপর হামলা চালায়। খবর পেয়ে আরিফের অনুসারীরাও সেখানে জড়ো হন। এ সময় দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের একপর্যায়ে আরিফকে কুপিয়ে আহত করা হয়। সড়কে দুই পক্ষ সংঘর্ষে জড়ালে আশপাশের ব্যবসায়ীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। 

ঘটনার পর আরিফকে উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য পরদিন বৃহস্পতিবার তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এখন তিনি সেখানেই চিকিৎসাধীন।

এদিকে আরিফকে কোপানের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। ঘটনার পর আরিফের বড় ভাই কামাল উদ্দিন বাদী হয়ে চাঁদাবাজি ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার পর পরই পুলিশ তিন আসামিকে গ্রেপ্তার করে। তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে পাঁচ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেছিল পুলিশ। সেই আবেদনের শুনানি করে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেয় আদালত। 

পাঁচলাইশ থানার ওসি জাহিদুল কবির বলেন, ফুটপাতে দোকান বসিয়ে চাঁদাবাজিকে ঘিরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে একজন আহত হয়েছিলেন। সেই ঘটনায় করা মামলায় তিন জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।