ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে গত একমাসের সাপ আতঙ্ক কেটে জনমনে স্বস্তি ফিরেছে। সাপ আতঙ্কে ওই এলাকার কৃষকেরা তাদের ধানি জমির ফসল কাটতে পারছিলেন না। পরে ওয়াইল্ডলাইফ এন্ড স্নেক রেসকিউ টিম ইন বাংলাদেশের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে গত চারদিনে অভিযান পরিচালনা করে ২৬টি পদ্ম গোখড়া সাপের ডিমের খোলাসা উদ্ধার করে। এর পর থেকেই সাধারণ মানুষের মধ্যে সাপ আতঙ্ক কমতে থাকে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে নির্বাহী কর্মকর্তার প্রশাসনিক হলরুমে দুপুরে সাপ আতঙ্ক নিয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ের আয়োজন করা হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হালিমা খাতুন প্রেস ব্রিফিংয়ে বলেন, সাপ আতঙ্কের খবরটি দত্ত বাড়ির প্রতিক দত্তের মাধ্যমে জানতে পেরে প্রাথমিকভাবে কিছু ব্যবস্থা গ্রহণ করি। পরে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে নিউজটি ভাইরাল হলে 'ওয়াইল্ডলাইফ এন্ড স্নেক রেসকিউ টিম ইন বাংলাদেশ'কে খবর দেওয়া হয়। তারা ঘটনাস্থলে এসে চারদিন অভিযান চালিয়ে দত্ত বাড়ির ইটের স্তুপ থেকে ২৬টির পদ্ম গোখরার সাপের ডিমের খোলাসা উদ্ধার করে। এ ছাড়াও আশপাশের বিভিন্ন ঝোঁপ জঙ্গলে খোঁজ করলেও সাপের কোন সন্ধান পায়নি। সাধারণ মানুষ এখন অনেকটা আতঙ্ক মুক্ত। এখন চলাফেরা করতে কোনো সমস্যা হচ্ছে না।

প্রেসব্রিফিংয়ে উপস্থিত 'ওয়াইল্ডলাইফ এন্ড স্নেক রেসকিউ টিম ইন বাংলাদেশ' দলের  সাধারণ সম্পদক মো. শাহজাহান বলেন, নাসিরনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা গত ২১ নভেম্বর আমাদের ফোন করে সাপ আতঙ্কের বিষয়টি জানান। আমরা ঘটনাস্থলে এসে আশপাশের ৫০০ মিটার জায়গাতে পরীক্ষা নিরীক্ষা নতুন কোন সাপের সন্ধান পায়নি। ওই এলাকার কৃষকদের জমিতে ধান কাটতে আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শও দেন তিনি।