বগুড়ায় তিন দিনব্যাপী কবি সম্মেলনের দ্বিতীয় দিন শনিবার বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে পাঁচ বিশিষ্ট ব্যক্তিকে সম্মাননা দেওয়া হয়েছে। জেলা পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত সম্মাননা পর্বে বগুড়া লেখক চক্রের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি কবি শেখ ফিরোজ আহমেদের সভাপতিত্বে এবং বাচিকশিল্পী অলক পালের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি ছিলেন অভিনেতা ও অনুবাদক খায়রুল আলম সবুজ। 

বিশেষ অতিথি ছিলেন পুলিশ সুপার সুদীপ কুমার চক্রবর্তী, কবি মাকিদ হায়দার, কবি মাহমুদ কামাল, কবিকুঞ্জের সাধারণ সম্পাদক কবি আরিফুল হক কুমার ও বগুড়া সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি তৌফিক হাসান ময়না। শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন সংগঠনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট পলাশ খন্দকার। আরও উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের উপদেষ্টা কবি শিবলী মোকতাদির ও সদস্য রিপন আহসান ঋতু।

সম্মাননা পাওয়া বিশিষ্ট ব্যক্তিরা হলেন- কবিতায় সরকার মাসুদ, কথাসাহিত্যে মনি হায়দার, লোকসাহিত্যে তপন বাগচী, লিটল ম্যাগাজিন সম্পাদনায় 'জলধি' সম্পাদক নাহিদা আশরাফী এবং সাংবাদিকতায় আরিফ রেহমান। এ সময় তাদের উত্তরীয় পরিয়ে দিয়ে সনদ ও ক্রেস্ট বিতরণ করেন প্রধান অতিথি।

কবি সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনের শুরুতে কবিতা ও ছড়া পাঠ করেন কবি ফরিদ আহমদ দুলাল, জাহাঙ্গীর ফিরোজ, অনিকেত শামীম, অরিন্দম মাহমুদ, আজিজার রহমান তাজ প্রমুখ। এরপর 'বাংলাদেশের কথাসাহিত্য ও তার পাঠকশ্রেণি' আলোচনা পর্বে সভাপতিত্ব করেন কথাসাহিত্যিক সাজাহান সাকিদার। কথাসাহিত্যিক রাজা সহিদুল আসলামের সঞ্চালনায় আলোচনায় অংশ নেন কথাসাহিত্যিক আবদুল্লাহ ইকবাল, নূর কামরুন নাহার, কবীর রানা, হোসনে আরা মণি, মোখলেছ মুকুল, নিশাত ইসলাম প্রমুখ। আবৃত্তি পর্বে সভাপতিত্ব করেন বাচিকশিল্পী হাসান মাহমুদ। 

আবৃত্তি করেন সাদেকুর রহমান সুজন, নিভা সরকার পূর্ণিমা, সুনীল শৈশব, শ্রাবণী সুলতানা, মশিউর রহমান, প্রতত সিদ্দিক এবং তাসনিম ত্রয়ী। বিকেল সাড়ে ৪টা থেকে ৬টা পর্যন্ত পৌর পার্কে 'পাখির সাথে পাঁচালী' পর্বে অংশগ্রহণ করেন কবিরা। সম্মেলনের তৃতীয় ও শেষ দিন রোববার মহাস্থানগড়ে কবিতাভ্রমণ।