রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলায় ভাতিজার ছুরিকাঘাতে নাজিম শাহ চেংকু (৪০) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। রোববার সকাল ৯টার দিকে উপজেলার সিন্দুরী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত চেংকু ওই গ্রামের মৃত ময়েজ শাহ'র ছেলে।

ঘটনার পর পালানোর সময় ভাতিজা নাসির উদ্দীনকে (৪০) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। নাসিরের বাবার নাম নাজু শাহ। চাচাকে কোপানোর পর নাসির মোহনপুর থানার সামনে দিয়েই পালাচ্ছিলেন। খবর পেয়ে পুলিশ থানার সামনে থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে।

নিহত নাজিম শাহ'র বড় ভাই বায়েম শাহ জানান, দু’বছর আগে নাসির তার বাবা নাজুকে কোদাল দিয়ে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করেন। ওই ঘটনায় করা মামলার সাক্ষী ছিলেন নাজুর ছোট ভাই নাজিম শাহ। কিছুদিন আগে তিনি ভাতিজার বিরুদ্ধে আদালতে সাক্ষী দেন। এ কারণে চাচার ওপর ক্ষিপ্ত ছিলেন ভাতিজা নাসির। বায়েম শাহ আরও জানান, বাবাকে হত্যা চেষ্টার মামলার আসামি হলেও নাসির পরিবারের সঙ্গেই থাকতেন। বাড়িতে মাঝে মাঝে ছুরি-চাকু বের করে চাচাকে হত্যার হুমকি দিতেন। রোববার সকালে পরিবারের সবাই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ভোট দিতে যান। ফাঁকা বাড়িতে খেতে বসেছিলেন নাজিম। তখন ছুরি নিয়ে এসে চাচাকে কুপিয়ে আহত করেন নাসির। কিছুক্ষণ পরই তার মৃত্যু হয়।

মোহনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তৌহিদুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে নিহতের বাড়িতে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। নিহত নাজিমের শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম রয়েছে। তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হবে। নাসিরের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা হবে।