অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের প্রতিবাদ করায় বাস থেকে স্কুল শিক্ষককে ফেলে দেওয়ার ঘটনায় তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। চট্টগ্রাম নগরের বায়েজিদ বোস্তামি থানার বিভিন্ন এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাবের পক্ষ থেকে এ তথ্য জানানো হয়।


গ্রেপ্তার তিনজন হলেন-বাসটির চালক হাটহাজারী থানার বিল্লাপাড়া গ্রামের নুরুল হকের ছেলে মো. লিটন (৩২), চালকের সহকারী নোয়াখালী জেলার চাটখিল থানার বৈখণ্ডপুর গ্রামের মৃত রুহুল আমিনের ছেলে মো. হোসেন (২৫) ও ফেনী জেলার দাগনভূঁঈয়া থানার আব্দুল হালিম মিন্টুর ছেলে মো. মাহিন (১৩)।

গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করে র‌্যাবের সিনিয়র সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট নিয়াজ মোহাম্মদ চপল বলেন, ‘অতিরিক্ত ভাড়া আদায় নিয়ে বাকবিতণ্ডার জেরে প্রথমে স্কুল শিক্ষক রহমত উল্লাহকে মারধর করা হয়। নির্দিষ্ট স্থানে নামতে না দিয়ে অন্যত্র নিয়ে একপর্যায়ে হত্যার উদ্দেশ্যে বাস থেকে তাকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয় বাসটির কন্ডাক্টর মো. হোসেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আসামিরা ঘটনার কথা স্বীকার করেছেন। তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।’


প্রসঙ্গত, শনিবার সকালে নগরের অক্সিজেন থেকে নিউমার্কেট যাওয়ার পথে পুরাতন রেলওয়ে স্টেশন এলাকায় বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেওয়া হয় স্কুল শিক্ষক রহমত উল্লাহকে। তিনি নগরের পাঁচলাইশের শাহ হাবিব উল্লাহ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক। চট্টগ্রাম নগরের মেহেদীবাগ বেসরকারি ন্যাশনাল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি। তার কোমরের হাড়ে চিড় ধরেছে। বাম পায়ের মাংস থেতলে গেছে। চামড়া নষ্ট হয়ে গেছে। চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, রহমত উল্লাহর পুরোপুরি সুস্থ হতে দীর্ঘ মেয়াদে চিকিৎসার প্রয়োজন হবে।