একের পর এক ফ্লাইট নামছে আর উঠছে। এমন পরিবেশেই বিমানবন্দরের রানওয়েতে গরু এদিক-সেদিক চড়ে বেড়ালে তা বিমান দুর্ঘটনার বড় কারণ হতে পারে। রানওয়েতে গরু চড়ার কারণে মঙ্গলবার সত্যি সত্যি বড় এক দুর্ঘটনা থেকে বাঁচল বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট ও তার যাত্রীরা।

বিমান এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটের পাখার ধাক্কায় কক্সবাজার বিমানবন্দরের রানওয়েতে দুটি গরু মারা গেছে। যদিও অত্যন্ত ঝুঁকি নিয়ে বিমানটি সফল উড্ডয়ন সম্পন্ন করেছে। কিভাবে নিরাপত্তার জাল ছিদ্র করে রানওয়েতে গরু আসল এ নিয়ে এরই মধ্যে তদন্ত শুরু করেছে একাধিক গোয়েন্দা সংস্থা।

কক্সবাজার আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) দায়িত্বশীল একজন কর্মকর্তা সমকালকে জানান, মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৫ টা ৫৫ মিনিটে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট (ফ্লাইট নং- ইএ ৪৩৪) ৯৪ জন যাত্রী নিয়ে রানওয়ের ১৭ নম্বর ডেল্টা পোস্টের সামনে দিয়ে উড্ডয়নের সময় বিমানের ডান পাশের পাখায় ধাক্কা লেগে দুটি গরু গুরুতর আহত হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায়। বিমানটি সফলভাবে উড্ডয়নের পর নভোএয়ার ও ইউএস বাংলার আরও দুটি বিমানও উড্ডয়ন করে। 

এই ঘটনার পর পুলিশ পরিদর্শক মনিরুজ্জামান ও উপ-পরিদর্শক তাজউদ্দীন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। গরু দুটির মালিক কে তা এখনও জানা যায়নি। মৃত গরু দুটিকে সরিয়ে রানওয়ে থেকে দূরে রাখা হয়েছে।

কক্সবাজারের ১৪ এপিবিএনের অধিনায়ক নাইমুল হক সমকালকে বলেন, কক্সবাজার রানওয়েতে যা ঘটেছে তা ভয়ঙ্কর। রানওয়ের নিরাপত্তার সিভিল এভিয়েশন ও আনসার সদস্যরা রয়েছেন। রানওয়েতে গরু ঢোকা বিস্ময়কর। নিরাপত্তার এই গাফিলতির কারণে বড় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। নিরাপত্তা নিয়ে নতুনভাবে ভাবতে হবে।